advertisement
আপনি দেখছেন

গত ১৫ মার্চ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে যে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো ন্যাক্কারজনক ওই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে ভারতও। কিন্তু ভারতের ওই নিন্দার সমালোচনা করছে পাকিস্তান। কারণ ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির অফিস থেকে জানানো নিন্দার বিবৃতিতে কোথাও মুসলিম বা মসজিদ শব্দ উল্লেখ করা হয়নি।

pakistani foreign minister

অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ২৮ বছর বয়সী উগ্রবাদী শ্বেতাঙ্গ (সাদা চামড়া) সন্ত্রাসী ব্রেনটন টারান্টের ভয়াবহ ওই নৃশংসতায় অন্তত ৫০ জন মুসল্লির মৃত্যু এবং অন্তত ৬০ জন আহত হয়েছেন।

কিন্তু ওই ঘটনার নিন্দা জানিয়ে ভারতের দেওয়া বিবৃতির কোথাও মসজিদ কিংবা মুসলমান শব্দ না ব্যবহার করায় এর সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি। অথচ ওই হামলার লক্ষ্যই ছিলেন মুসলমানরা।

ডন বলছে, তিন দিনের বেইজিং সফররত পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রী বুধবার পাকিস্তানি সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, নিন্দা বিবৃতিতে কোথাও মুসলিম কিংবা মসজিদ শব্দ ব্যবহারের সাহস পায়নি ভারত।

কোরেশি বলেন, ‘যদি, আল্লাহ না করুন, হিন্দু মন্দিরে এ ধরনের হামলা হতো, তা হলে পাকিস্তান ভারতের পাশে থাকতো।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের মুসলমানরা যখন জুমার নামাজ আদায় করছেন তখন ওই হত্যাযজ্ঞ চালায় ‘শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ব’র অনুসারী টারান্ট। শুধু তাই নয়, ১৭ মিনিটের ভয়াবহ ওই নৃশংসতার লাইভ প্রচার করে সে।