আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 23 মিনিট আগে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুই মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় অর্ধশত মানুষ নিহত হবার ঘটনা তদন্তে উচ্চ ক্ষমতার কমিটি গঠন করেছেন নিউজিল্যান্ড। আজ সোমবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্ন এ সংক্রান্ত কমিশন গঠনের ঘোষণা দেন।

new zealands pm jasmine arderna

গত ১৫ মার্চের হামলার নেপথ্যের কারণ অনুসন্ধান করবে রয়্যাল কমিশন। মুসলিমবিদ্বেষী ওই হামলার ঘটনার পর মুসলমানদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছে পুরো কিইউ।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নিউজিল্যান্ড নজরদারি রাষ্ট্র নয়। কিন্তু এ হামলার ব্যাপারে আগেই তথ্য পাওয়া উচিত ছিল আমাদের। নজরদারি আইন কী খুবই দুর্বল? এই প্রশ্নের উত্তর খুবই জরুরি হয়ে পড়েছে। তবে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো স্বাধীন। তারা তাদের মতো করে তদন্ত করবে। এ নিয়ে কারো কোনো প্রশ্ন নেই, এটিকে আমি স্বাগত জানাই।’

তিনি বলেন, ‘তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের ব্যাপারে রয়্যাল কমিশনই সিদ্ধান্ত নেবে। এ ব্যাপারে আমরা সময় বেঁধে দিতে চাই না। তবে এ সব প্রশ্নের জবাব মানুষ জানতে চায়, সে ব্যাপারেও আমি অবগত আছি। তারা দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে চায় না।’

এর আগে গেলো শুক্রবার জুমার আজান এবং জুমার নামাজ দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন ও রেডিওতে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। ফলে আজানের ধ্বনিতে মুখরিত হয়ে উঠে পুরো নিউজিল্যান্ড। এ সময় দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডার্নসহ বিভিন্ন ধর্মের কয়েক হাজার মানুষ মুসলমানদের প্রতি সংহতি জানাতে আল নূর মসজিদের পাশবর্তী হেগলি পার্কে সমবেত হন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ মার্চ শুক্রবার জুমার নামাজের সময় আল নুর ও লিনউড মসজিদে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর ভয়াবহ ও বর্বর সন্ত্রাসী হামলা চালায় এক মুসলিমবিদ্বেষী অস্ট্রেলীয় বন্দুকধারী। এতে অন্তত ৫০ জন নিহত ও ৪৮ জন আহত হন। এই হত্যাকাণ্ডে নিউজিল্যন্ডসহ গোটা পৃথিবী ধিক্কার জানায়।