advertisement
আপনি দেখছেন

আজ থেকে হাজার হাজার বছর আগে পৃথিবীতে রাজত্ব চালাতো বিশাল আকৃতির ম্যামথ হাতি। প্রায় দশ হাজার বছর আগে পৃথিবী থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যায় এই প্রাণী। হাতির পূর্ব পুরুষ হিসেবে পরিচিত এই ম্যামথ হাতির পুরো শরীর থাকতো বড় পশমে আবৃত আর থাকতো বিশাল আকৃতির দাঁত। তবে এই হাতিকে পুনরায় ফিরিয়ে আনতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা।

mamth elephant new

রাশিয়া এবং জাপানি বিজ্ঞানীরা পুনরায় এই ম্যামথ হাতিকে ফিরিয়ে আনার পথ খুঁজে পেয়েছেন। আট বছর আগে সাইবেরিয়ার জমে থাকা বরফ থেকে 'ইউকা' নামের একটি কিশোর বয়সের ম্যামথের হিমায়িত দেহ উদ্ধার করা হয়। এটির একটি পা থেকেই কিছু হিমায়িত কোষের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরে বিজ্ঞানীরা এগুলোকে কোষ বিভাজনের প্রাথমিক পর্যায়ে নিয়ে যান।

এটি মূলত ২৮ হাজার বছর আগের ম্যামথ। পরে এই ইউকার কোষ কেন্দ্রকগুলো প্রতিস্থাপন করা হয় ইঁদুরের দেহ কোষরাজিতে। জাপানের কিনদাই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক কেই মিইয়ামোতোর নেতৃত্বে চলছে এই গবেষণা। তিনি জানান, ইউকার কোষ প্রতিস্থাপনের পর ইঁদুরের কোষরাজির জৈব তৎপরতা শুরু হয়েছে। হাজার হাজার বছর ধরে হিমায়িত থাকলেও এমন জৈব তৎপরতায় আশার আলো দেখছেন গবেষকরা।

তবে গবেষকরা জানিয়েছেন, জৈব তৎপরতা শুরু হলেও কোষ বিভাজনের কাজ এখনো শুরু করা যায়নি। কোষ বিভাজন ঘটলেই ম্যামথকে ক্লোন করে ফিরিয়ে আনা সম্ভব। তবে বিজ্ঞানীরা এ ব্যাপারে আশাবাদী।

জানা গেছে, বিভাজনের উপযোগী কোষমালা খুঁজে পেতে ম্যামথের শরীর নিয়ে কাজ করছে বিজ্ঞানীরা। তবে তারা বলছেন, হাজার হাজার বছর হিমায়িত থাকার পরও ক্ষতিগ্রস্ত কম হয়েছে ম্যামথের এমন কোষ প্রয়োজন। ইউকা ছাড়াও তার সঙ্গে উদ্ধার করা অন্য হিমায়িত ম্যামথের শরীরও তল্লাশি করা হচ্ছে। তারা এক সময় সফল হবে বলেও আশাবাদী। ফলে ধারণা করা হচ্ছে হয়তো ফিরে আসছে দৈত্যাকার ম্যামথ হাতি।