advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 32 মিনিট আগে

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় এক সন্দেহভাজন পুলিশের তল্লাশির মুখে আত্মহত্যা করেছেন। তিনি রাশিয়ার সাবেক সেনা বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ডের গণমাধ্যম স্টাফ.কো.এনজেড।

former russian soldier suspected for mosque attack

আজ বুধবার ভোররাতে ক্রাইস্টচার্চের কেন্দ্রস্থলে পুলিশের সঙ্গে বাদানুবাদের এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাতে ৫৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি আত্মহত্যা করেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ত্রয় দুভোস্কি নামক ওই ব্যক্তির বাসভবনে হানা দেয় পুলিশ। এ সময় তিনি বাসভবনে না থাকলেও সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়, যেগুলোর মধ্যে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্রও ছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ মার্চ ক্রাইস্টচার্চের আল নুর ও লিনউড মসজিদে অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত ২৮ বছর বয়সী অতি ডানপন্থী উগ্রবাদী সন্ত্রাসী ব্রেনটন টারান্টের নৃশংশ গুলিবর্ষণে ৫০ মুসল্লি নিহত হন। ওই সন্ত্রাসীকে পুলিশ আটক করলেও এখন পর্যন্ত ওই ভয়াবহ হামলার ঘটনায় দ্বিতীয় কারো জড়িত থাকার প্রমাণ পায়নি পুলিশ।

তার মধ্যেই গতকাল ওই সন্দেহভাজনের নাম জেনে হানা দেয় পুলিশ।

ইরানি গণমাধ্যম পার্সটুডে বলছে, পরবর্তীতে মধ্যরাতের পর ক্রাইস্টচার্চের একটি সড়কে দুভোস্কির সন্ধান পায় পুলিশ এবং তার গাড়িকে চ্যালেঞ্জ করা হয়। এ সময় তিনি গাড়িতে বসেই পুলিশের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় পুলিশ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে তার সঙ্গে কথা বলতে থাকে। কিন্তু দুভোস্কি আত্মসমর্পণ করতে অস্বীকৃতি জানান। এক পর্যায়ে তার গাড়ির মধ্যে টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে পুলিশ।

কিন্তু তারপরও তিনি আত্মসমর্পণ করেননি। পরে আজ ভোররাত ৩টা ৪০ মিনিটে পুলিশ তাকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। এরপর হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। দুভোস্কির গাড়িতে একটি ছুরি ছাড়া আর কোনো অস্ত্র পাওয়া যায়নি বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

sheikh mujib 2020