advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

সম্প্রতি বিমান হামলাকে কেন্দ্র করে তীব্র উত্তেজনার মধে নিজ দেশের আকাশপথ ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল পাকিস্তান। কিন্তু সেই উত্তেজনা হ্রাস পেলেও নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখায় বড় ধরনের ক্ষতির মুখে পড়ে ভারত। দেশটির বিমান কোম্পানি ‘এয়ার ইন্ডিয়া’ গত মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত ৬০ কোটি টাকা ক্ষতির কথা জানিয়েছে।

air india in the face of losses 1

তবে এবার পশ্চিমা দেশগুলোতে গমনকারী ভারতীয় বিমানের জন্য আকাশপথের নিষেধাজ্ঞা আংশিক তুলে নিয়েছে পাকিস্তান। দেশটির ওপর দিয়ে যাওয়া ১১টি এয়ার রুটের মধ্যে মাত্র একটি রুট ভারতের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে। এ পথেই এয়ার ইন্ডিয়া ও টার্কিস এয়ারলাইন্সের বিমান চলাচল শুরু করেছে।

এক পাকিস্তানি কর্মকর্তা জানান, গত বৃহস্পতিবার থেকে ১১টি রুটের মধ্যে একটি রুট খুলে দেয়া হয়। এ রুটে ভারত ও পশ্চিমের দেশগুলোর বিমান চলাচল করে থাকে। ইতোমধ্যে এ রুটে বিমান চলাচল শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে বড় ধরনের আত্মঘাতী হামলার পর পাকিস্তানের ওপর দোষ চাপিয়ে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি বিমান হামলা চালিয়েছিল নয়া দিল্লি। এর জবাব দিতে প্রতিদ্বন্দ্বী ইসলামাবাদও ভারতের পাল্টা বিমান হামলা চালায়। এতে দুদেশের মধ্যে যুদ্ধাবস্থার তৈরি হয়। এর প্রেক্ষিত্রে নিজেদের আকাশপথে নিষেধাজ্ঞা জারি করে পাকিস্তান।

পরে গত ২৭ মার্চ অন্যান্য দেশের জন্যে আকাশপথ খুলে দিলেও নয়াদিল্লি, ব্যাংকক ও কুয়ালালামপুরগামী ভারতীয় বিমানকে ছাড়পত্র দেয়া হয়নি। এতে বিপাকে পড়ে ভারতীয় বিমান কোম্পানিগুলো।

এর আগে এয়ার ইন্ডিয়া কোম্পানিটি দাবি করেছিল, নিষেধাজ্ঞা থাকাকালীন ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকাগামী বিমান চলাচলে জ্বালানির জন্য প্রত্যেকবার অবতরণের জন্য গড়ে ৫০ লাখ টাকা করে খরচ করতে হয়েছে। এছাড়া বিমানগুলোকে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে দু’ঘণ্টা বেশি সময় লাগছিলো।

sheikh mujib 2020