advertisement
আপনি দেখছেন

যুক্তরাষ্টের গোপন নথী ফাস করে আলোড়ন সৃষ্টি করা ওয়েবসাইট উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জাকে কার্যত বেআইনিভাবে বন্দী করে রাখা হয়েছে বলে মত দিয়েছে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্যানেল। সেই সঙ্গে তাকে আটক করে রাখার অপরাধে অ্যাসাঞ্জাকে ক্ষতিপূরণ দিতেও বলেছে জাতিসংঘ। তবে অ্যাসাঞ্জাকে বন্দীর অভিযোগকে কোনরকম পাত্তাই দেননি যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রী।

julian assange1

জাতিসংঘের আইনজীবীদের একটি প্যানেল বলছে, অ্যাসাঞ্জাকে বন্দী অবস্থায় রাখা একদম বেআইনি। তাকে অবশ্যই মুক্তি এবং ব্যক্তিগত স্বাধীনতা হরণের জন্য ক্ষতিপূরণ দেয়া উচিত। 

অ্যাসাঞ্জার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত যৌনমামলায় তাকে সুইডেনের কাছে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া  দীর্ঘদিন থেকেই চলছে। মামলার পর ২০১২ সালের মাঝামাঝি সময় থেকে লন্ডনে অবস্থিত ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় নেন তিনি। 

উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জাতিসংঘের বিবেচনাকে স্বাগত জানিয়েছেন। ব্রিটেনের একুয়েডর দূতাবাত থেকে এক ভিডিও বার্তায় অ্যাসাঞ্জা জানান, জাতিসংঘের মন্তব্য আমার জন্য একটি বড় জয়। আমি ভীষণ খুশি এবং এই বন্দীদশা থেকে মুক্তি চাই।

ব্রিটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফিলিপ হ্যামন্ড বলেছেন, অ্যাসাঞ্জা আইনকে ফাঁকি দিচ্ছেন। দূতাবাসের বাইরে এলেই তাকে গ্রেপ্তার করে সুইডেনের কাছে হস্তান্তর করা হবে। জাতিসংঘের প্রতিবেদন যাই হোক তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি আদেশ এখনো বহাল আছে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

আত্মসমর্পণ করবেন উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা!

এবার ইউরোপে প্রবেশ করলো জিকা ভাইরাস

আবারো নোবেল শান্তি পুরস্কারের তালিকায় স্নোডেন

sheikh mujib 2020