advertisement
আপনি দেখছেন

যুক্তরাষ্ট্রের একটি খ্রীস্টান বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্ম নিয়ে মন্তব্য করায় চাকরি ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন অধ্যাপক। লারসিয়া হকিন্স নামের সেই অধ্যাপক মুসলমান-খ্রীস্টান সবাই একই খোদার সৃষ্টি বলে মন্তব্য করেছিলেন। পরে বিতর্কের মুখে তাক বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি ছেড়ে দিতে হয়।

hijab professor

তবে বিশ্ববিদ্যালটির পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয় তাদের সঙ্গে গোপন সমঝোতার ভিত্তিতে হকিন্স চাকরি ছেড়েছেন। শিকাগোর হুইটন কলেজে তিনি ৯ বছর ধরে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়ে পড়াতেন। বিবৃতিতে বিগত বছরগুলোতে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ড. হকিন্সের নানা অবদানের কথা উল্লেখ করেছেন প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি ফিলিপ গ্রাহাম রাইকেন।

গত বছর ডিসেম্বরের শেষদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেয়া স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে বিতর্কের শুরু হয়।

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ড. হকিন্স লেখেন, মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের প্রতি সংহতি প্রকাশের জন্য তিনি হিজাব পড়তে শুরু করেছেন। তিনি মুসলমানদের সহমর্মিতা দেখাতে সব ধর্মের নারীদের হিজাব পরার আহ্বান জানান। সবাই একই ইশ্বরের সাহায্য প্রার্থনা করে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।তার ফেসবুক স্ট্যাটাসটি যুক্তরাষ্ট্রে মুসলমানদের সার্বিক অবস্থান নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি করেছে বলে মনে করছেন অনেক কূটনৈতিক বিশ্লেষক।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

আন্তর্জাতিক অবরোধ আসতে পারে উত্তর কোরিয়ার উপর

কলম্বিয়ায় জিকায় আক্রান্ত ২৫ হাজার মানুষ

তাইওয়ানে ধ্বংসস্তুপের নিচে এখনো আটক ১৩২ জন

sheikh mujib 2020