advertisement
আপনি দেখছেন

সিরিয়া সরকার আটক বন্দীদের নিশ্চিহ্ণ করতে চায় বলে জাতিসংঘের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। প্রতিবেদনে উল্লেখ রয়েছে, সিরিয় প্রশাসনের কয়েদখানায় আটক বন্দীরা ব্যাপক হারে মারা যাচ্ছে। বন্দীদের নিশ্চিহ্ণ করে দেয়া একটি সিরিয় নীতি, যা মানবতা বিরোধী অপরাধ।

syria

জাতিসংঘ দীর্ঘদিন বন্দীদের পর্যালোচনা এবং তদন্ত করে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে। তদন্তকারীরা বলছেন, সিরিয়াতে হাজার হাজার বেসামরিক বন্দী রয়েছে। বিদ্রোহীদের সমর্থন দেয়া এবং তাদের আনুগত্য স্বীকার করা অপরাধে তাদের আটক করা হয়। প্রতিবেদনে বিদ্রোহীদের বিনা বিচারে হত্যা করারও অভিযোগ রয়েছে।

মানবাধিকার কাউন্সিলের প্রতিবেদন অনুযায়ি,সরকার পক্ষ এবং বিরোধী পক্ষ সম্ভাব্য সবাই যুদ্ধাপরাধ করছে। 'সিরিয়ায় আটক অনেক বন্দীদের চরম নির্যাতন করা হয়েছে। অনেককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। মৌলিক চাহিদা খাদ্য, পানি কিংবা চিকিৎসার অভাবে মারা গেছেন অনেক বন্দী।' এমনটিই মনে করেন গবেষকরা।

অনেক প্রত্যক্ষদর্শী বর্ণনা এবং ২০১১ সালের মার্চে সিরিয়ায় বিক্ষোভ চলাকালিন সময় থেকে নানা তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে প্রতিবেদনটি করা হয়। বন্দিদের অবস্থাকে জরুরি এবং মানবাধিকার রক্ষার সংকট হিসেবে উল্লেখ করেছে জাতিসংঘ।

ধারণা করা হয়, যুদ্ধ চলাকালিন সময়ে কয়েক হাজার বন্দি দুই পক্ষের হাতেই নিহত হয়েছে। সিরিয়া থেকে প্রায় ৪৬ লাখ মানুষ পালিয়ে যায়। এখন পর্যন্ত গৃহযুদ্ধে আড়াই লাখ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

এশিয়া-আফ্রিকায় জিকা ছড়ানোর আশঙ্কা

ইরানি জেনারেল: আমেরিকার ইশারায় চলছে সৌদি নীতি

বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি ছেড়ে দিলেন হিজাবধারী অধ্যাপক

sheikh mujib 2020