advertisement
আপনি দেখছেন

বহু ভাষার দেশ পাকিস্তানে বিদ্যালয় পর্যায়ে শুধু উর্দু ভাষার শিক্ষা দেশটিতে রাজনৈতিক অসন্তোষ সৃষ্টি করছে বলে মত দিয়েছে ইউনেস্কো। ইউনেস্কো প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে পাকিস্তানের একটি ইংরেজি দৈনিক এ খবর দিয়েছে।

pakistan hartal

২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের আগে জাতিসংঘের প্রকাশিত পলিসি পেপারে তুরস্ক, নেপাল, পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং গুয়েতেমালার জাতিগত সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর উদাহরণ দেয়া হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, পাকিস্তানে মাত্র আট শতাংশের মানুষ উর্দুতে কথা বলে থাকে। কিন্তু দেশটির সব সরকারি বিদ্যালয়ে শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে উর্দুই ব্যবহৃত হচ্ছে। এতে দেশটির রাজনৈতিক অসন্তোষ উস্কে দেয়া হচ্ছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

এছাড়া প্রতিবেদনে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনের কথা তুলে ধরা হয়। বলা হয়, পাকিস্তানে প্রধান ছয়টি ভাষাভাষী ও ৫৪টি ক্ষুদ্র গোষ্ঠী থাকা সত্ত্বেও উর্দুকে প্রধান ভাষা হিসেবে বেছে নেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল। কিন্তু পাক-শাসকরা সেখানে ব্যর্থ হয়েছিলো।

একইসাথে প্রতিবেদনে বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার আদিবাসী গোষ্ঠীগুলোর কথাও তুলে ধরা হয়। বলা হয়, আদিবাসী গোষ্ঠীগুলোর প্রতি ভাষা প্রসঙ্গে অন্যায় করা হচ্ছে। কারণ শিশুকে নিজের ভাষায় শিক্ষা দেয়া না হলে শিশুর শিক্ষার ওপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়ে।

 

আপনি আরও পড়তে পারেন

হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প জয়ী

পেস্তা নিয়ে ইরান-আমেরিকা যুদ্ধ

রাশিয়ার প্রতি ওলাঁদ: আসাদের ওপর থেকে সমর্থন উঠিয়ে নিন

sheikh mujib 2020