advertisement
আপনি দেখছেন

সৌরজগতে গ্রহ-উপগ্রহ ছাড়াও রয়েছে অসংখ্য মহাজাগতিক বস্তু ও গ্রহাণু। মাঝে মাঝে গ্রহাণুগুলো তীব্র বেগে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসে। যা পৃথিবীর বাসিন্দাদের জন্য বড়ই চিন্তার বিষয়। তবে ধেয়ে আসা এসব গ্রহাণুকে আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক মিসাইল দিয়ে ধ্বংস করতে চায় রাশিয়া।

asteroid

এমনটিই জানিয়েছেন রাশিয়ার মাকেয়েভ রকেট ডিজাইন ব্যুরোর শীর্ষ গবেষক সাবিত সাইতগারায়েভ। তিনি বলেন, গ্রহাণুর বিষয়টি নিয়ে রাশিয়ার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রও কাজ করছে।

সাইতগারায়েভ বলেন, মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (নাসা) ধেয়ে আসা গ্রহাণুগুলোকে ধ্বংস না করে দিক পরিবর্তন করে অন্যদিকে ঠেলে দিতে চায়। কিন্তু পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল স্পর্শ করার আগেই রাশিয়া এসব গ্রহাণুকে ধ্বংস করে দিতে চায়।

মহাকাশ বিজ্ঞানীরা ধারণা করছে গ্রহাণু বা উল্কাপিণ্ডের আঘাতে পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হয়ে গেছে ডাইনোসররা। আশঙ্কা করছেন কোনো একদিন মানবজাতিও এভাবে ধ্বংস হতে পারে।

গ্রহাণু ধ্বংসের বিষয়ে সাবিত সাইতগারায়েভ বলেন, প্রথমে ২০-৫০ মিটার পর্যন্ত ব্যাসের গ্রহাণুগুলোকে ধ্বংস করার চিন্তা করছি।

রাশিয়ার শেলিয়াবিনস্ক এলাকায় ২০১৩ সালে ২০ মিটার ব্যাসের একটি গ্রহাণুর বিস্ফোরণ ঘটে। প্রায় ৩ লাখ টন টিএনটির বেশি শক্তির বিস্ফোরণ হয় এত। বিস্ফোরণে ওই এলাকার ভবনগুলোর জানলা-দরজার কাঁচ ভেঙে যায়। আহত হয় কয়েক হাজার মানুষ।

এ বিষয়ে নাসার পরিচালক জেসন কেসলার বলেন,পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা আকারে কিছুটা ছোট গ্রহাণুগুলোর মধ্যে মাত্র ১ শতাংশ চিহ্নিত করা যায়। এর বাইরেও অনেক গ্রহাণু পৃথিবীর জন্য হুমকিসরূপ।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

পাকিস্তানে রাজনৈতিক অসন্তোষের মূলে আছে উর্দু ভাষা

হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প জয়ী

রাশিয়ার প্রতি ওলাঁদ: আসাদের ওপর থেকে সমর্থন উঠিয়ে নিন

sheikh mujib 2020