advertisement
আপনি দেখছেন

পৃথিবীর দক্ষিণ গোলার্ধের রাষ্ট্র ফিজিতে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ এবং শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় 'উইনস্টোন’ আঘাত হেনেছে। ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ১৭ জন প্রাণ হারিয়েছেন। ঘূর্ণিঝড়ে দেশটির যোগাযোগ ব্যবস্থা চরম ব্যহত হয়েছে, ভেঙে পড়েছে অসংখ্য বিল্ডিং-ঘরবাড়ি। ঘূর্ণিঝড়ের দুইদিন পর সংকট কাটিয়ে ওঠার সংগ্রাম করছে দেশটি।

winston in fiji

বাংলাদেশ সময় রোববার দিবাগত রাতে ফিজির স্থানীয় গণমাধ্যম জানায়, উইনস্টোন দিক পরিবর্তন করে দূর্বল হয়ে পড়েছে। মৌসুমী এই ঘূর্ণিঝড়টি ফিজি থেকে সরে গেলেও তিনশ দ্বীপের দেশ ফিজিতে রেখে গেছে ভয়াবহতার চিহ্ন।

ঘূর্ণিঝড়ের পর দেশটির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দুইদিন পর তাদের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। দেশটির পল্লী ও উপকূল উন্নয়ন মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর জানিয়েছে, প্রায় ১ সপ্তাহ বন্ধ থাকবে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার স্কুলগুলো।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো জানায়, ‘উইনস্টন’র আঘাতের সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৯৬ কিলোমিটার (১৮৪ মাইল)। তবে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানার আগেই সতর্ক অবস্থান নেন ফিজির প্রধানমন্ত্রী ফ্রাঙ্ক বাইনিমারামা। সকলকে নিরাপদে থাকার পরার্শ দিয়ে তিনি ৩০ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করেন এবং দেশব্যাপী কারফিউও জারি করেন।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

অবিবাহিত নারীদের জন্য মোবাইল ব্যবহার নিষিদ্ধ!

ইরান সফরে আসছেন তিন দেশের প্রেসিডেন্ট

তুরস্কে আঘাত হানতে দ্বিধাবোধ করবে না পুতিন

sheikh mujib 2020