advertisement
আপনি দেখছেন

কাশ্মিরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে ভারত সরকারের অনুমতি নেয়ার জন্য ট্রাম্প প্রশাসনের সাহায্য চেয়েছে মার্কিন কংগ্রেস প্যানেল। বৃহস্পতিবার এ নিয়ে লেখা একটি চিঠি মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে পাঠিয়েছেন হাউস ফরেন অ্যাফেয়ার্স সাব-কমিটি অন এশিয়ার প্রধান কংগ্রেসম্যান ব্র্যাড শেরম্যান।

kashmir unrest 3কাশ্মিরের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্ধেগ প্রকাশ করা হয়

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম দ্যা ডন এর খবরে বলা হয়, দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক প্রধান মার্কিন অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অ্যালিস ওয়েলসকে লেখা চিঠিতে কাশ্মিরে কূটনীতিক পাঠানোর চেষ্টা জোরদার করার আহ্বান জানান শেরম্যান। পাশাপাশি কাশ্মিরের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্ধেগ প্রকাশ করা হয়।

চিঠিতে বলা হয়, কাশ্মির থেকে আসা মানবাধিকার লঙ্গনের তথ্যগুলোর নির্ভরযোগ্যতার ঘাটতি রয়েছে। তাই ভারতীয় সরকারের উচিত যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিকদের কাশ্মির পরিদর্শনের অনুমতি দেয়া।

চিঠিতে অ্যালিস ওয়েলসকে স্মরণ করিয়ে শেরম্যান উল্লেখ করেন, গত ৫ আগস্ট ভারত এ অঞ্চলের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়ার পর মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটে। এ নিয়ে মার্কিন কূটনীতিকদের কাশ্মির পরিদর্শনের অনুমতি দেয়া হয়েছে কিনা তা ২২ অক্টোবরের শুনানিতে জানতে চাওয়া হয়েছিল। তখন আপনি (অ্যালিস ওয়েলস) বলেছিলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র কাশ্মির পরিদর্শনের অনুমতি চেয়েছিল, কিন্তু ভারত সরকার সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছে।’

এর আগে অক্টোবরে হাউস ফরেন অ্যাফেয়ার্স সাব-কমিটি এশিয়ার মানবাধিকার বিষয় নিয়ে একটি শুনানি করে। শুনানিতে অংশগ্রহণকারীরা কাশ্মির পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন। একই সঙ্গে এ উপত্যকা নিয়ে নয়াদিল্লির সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন।

অ্যালিস ওয়েলসকে লেখা চিঠিতে শেরম্যান জানতে চান, ‘কূটনীতিকদের কাশ্মির পরিদর্শনের জন্য ভারত সরকারের নিকট যুক্তরাষ্ট্র কতবার অনুরোধ জানিয়েছে? এবং কী কারণে ভারত সরকার অনুমতি দিতে অস্বীকৃতি জানায়?’ অথচ তখন ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের কিছু সদস্যকে কাশ্মির পরিদর্শনের অনুমতি দিয়েছিল ভারতীয় প্রশাসন।

প্রসঙ্গত, ৫ আগস্ট নরেন্দ্র মোদির বিজেপি সরকার কাশ্মিরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা কেড়ে নেয়। তারপর থেকেই অঞ্চলটিকে সমগ্র বিশ্ব থেকে কার্যত বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে।