advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 39 মিনিট আগে

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা উপনির্বাচনে ক্ষমতসীন বিজেপিকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস। বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হওয়া এ নির্বাচনে তৃণমূল এমন তিনটি আসনে জয় পেয়েছে যেগুলোতে গত ২১ বছর ধরে তারা জিততে পারেনি। এনআরসির কারণেই মাত্র ছয় মাসের মধ্যে বিজেপির এমন ভরাডুবি হয়েছে বলে মনে করছেন দেশটির রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

mamta win bgpবিধানসভা উপনির্বাচনে বিজেপিকে হারিয়ে মমতার বাজিমাত

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলা উত্তর দিনাজপুর এবং নদীয়ার কালিয়াগঞ্জ ও করিমপুর আসনে তৃণমূলের জয়ের প্রধান কারণ এনআরসি আতঙ্ক। কারণ, সেখানকার অধিকাংশ মানুষের নাগরিকত্ব প্রমাণ দেয়ার নথি নিয়ে উদ্বেগ ছিল। তাদের অনেকের জমিজমার কাগজপত্রেও ভুল রয়েছে।

আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, এনআরসি হলে নিজ ভূমিতেই উদ্বাস্তু হয়ে থাকতে হবে। এমন কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ দলটির নেতারা পাড়ায় পাড়ায় মিটিং করে বলেছিলেন। পাশাপাশি এটাও আশ্বাস দেয়া হয়েছিল যে, তৃণমূল সরকার বাংলায় এনআরসি হতে দিবে না। দলটির এমন প্রচারণার কারণেই বিজেপির ভরাডুবি হয়েছে।

এদিকে, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সংসদে পাশ করানো হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তিনি একাধিকবার বলেন, নতুন আইনে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে আসা হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, খ্রিষ্টান ও পার্সিকে শরণার্থী হিসেবে ধরে নিয়ে ভারতের নাগরিকত্ব দেয়া হবে। তারপরও জনগণের আস্থা অর্জন করতে ব্যর্থ হয়েছে দলটি।

প্রসঙ্গত, কংগ্রেসের দুর্গ হিসেবে কালিয়াগঞ্জ ও খড়্গপুর এবং বাম-কংগ্রেসের দুর্গ হিসেবে পরিচিত ছিল করিমপুর। এই তিন আসনেই গত লোকসভা নির্বাচনে হানা দেয় বিজেপি। ২১ বছর পর আসনগুলো এবার নিজের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

sheikh mujib 2020