advertisement
আপনি দেখছেন

এক বছর পর্যন্ত সতেজ থাকবে- এমন নতুন জাতের আপেল এসেছে বাজারে। দুই দশকের গবেষণার পর কসমিক ক্রিস্প নামের এ আপেলের ব্যবসায়িক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। গতকাল রোববার থেকে যুক্তরাষ্ট্রে বাজারে এ আপেল বিক্রি শুরু হয়েছে।

cosmic crisp new appleকসমিক ক্রিস্প আপেল

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দীর্ঘ গবেষণার পর দেশটির রাজধানী ওয়াশিংটনে নতুন জাতের আপেল চাল করার অনুমতি পেয়েছেন স্থানীয় চাষিরা। তারা আগামী ১০ বছর এ আপেল চাষ করতে পারবেন।

১৯৯৭ সালে নতুন ধরনের এ আপেল প্রথমবার চাষ করে ওয়াশিংটন স্টেট ইউনিভার্সিটির গবেষকরা। এ আপেলের ব্যবসায়িক চাষাবাদ শুরু করতে ১ কোটি ডলার খরচ হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এটি হানি ক্রিস্প ও এন্টারপ্রাইজ ধরনের আপেলের সংমিশ্রণ।

এ প্রকল্পের একজন গবেষক কেট ইভান্স জানান, নতুন জাতের এ আপেল ফ্রিজে রেখে ১০-১২ মাস পর্যন্ত সতেজ রাখা সম্ভব। এ আপেল দীর্ঘদিন খাওয়ার যোগ্য, আপেলের স্বাদ ও গুণাগুণ অক্ষুন্ন থাকে।

বিবিসি বলছে, ওয়াশিংটনের বিভিন্ন বাগানে এখন পর্যন্ত ১ কোটি ২০ লাখের বেশি কসমিক ক্রিস্প আপেলের গাছ লাগানো হয়েছে। এ আপেলের চাষ নিয়ন্ত্রণ করতে কঠোর লাইসেন্সিং পদ্ধতি অনুসরণ করা হচ্ছে, যাতে তা দেশের অন্য এলাকায় ছড়িয়ে না পড়তে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বেশি আপেল উৎপাদিত হয় ওয়াশিংটনে। ওই এলাকায় গোল্ডেন ডেলিশাস ও রেড ডেলিশাস জাতের আপেল খুব জনপ্রিয়। তবে সম্প্রতি পিঙ্ক লেডি ও রয়্যাল গালা জাতের আপেলও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশটিতে ফলের মধ্যে কলার পরই সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয় আপেল।