advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ‘বিপজ্জনকভাবে ভুল দিকে বাঁক নিচ্ছে‘ বলে দাবি করেছে আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সংক্রান্ত মার্কিন কমিশন (ইউএসসিআইআরএফ)। এ জন্য দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রস্তাব দিয়েছে সংস্থাটি।

amit sah banভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ

বিরোধীদের তীব্র আপত্তি, হইচই ও তর্কবিতর্কের মধ্যেই সোমবার রাতে ভারতের লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়েছে। ২৯৩-৮২ ব্যবধানে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস করিয়ে নেয় নরেন্দ্র মোদি সরকার। বিলটি রাজ্যসভায় তোলা হবে। সেখানে পাস হলে তা কার্যকর হবে।

প্রস্তাবিত আইনে বলা হয়েছে, ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে যে হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি ও খ্রিস্টানরা ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার হয়ে ভারতে এসেছেন, তাদেরকে বেআইনি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে ধরা হবে না। তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব দেয়া হবে। তবে মুসলিমরা নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন না।

ইউএসসিআরএফ জানিয়েছে, এই বিল একটা বিপজ্জনক দিকে বাঁক নিচ্ছে। ভারতের ধর্মনিরপেক্ষ মনোভাবের ইতিহাসের বিরোধিতা করছে এই বিল। পাশাপাশি ভারতীয় সংবিধানেরও বিরোধিতা করছে।

তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করেন, লক্ষাধিক শরণার্থীদের দুর্বিষহ জীবন থেকে মুক্তি দেয়ার একমাত্র রাস্তা হলো এই বিল। এই বিলের মাধ্যমেই শরণার্থীদের নাগরিকত্ব প্রদানের কাজ অনেক সহজ হয়ে উঠবে।

তার মতে, এই বিল কোনোভাবেই অসাংবিধানিক নয় এবং ১৪ নং ধারার কোনো অবমাননা করা হয়নি।

আসামের পাশাপাশি দেশব্যাপী এনআরসি চালু করার যে মনোভাব অমিত শাহ দেখিয়েছেন, সে প্রসঙ্গে কমিশনের বক্তব্য, ‘ইউএসসিআরএফ ভয় পাচ্ছে ভারত সরকার ভারতীয় নাগরিকদের ধর্মের পরীক্ষা নিতে চাইছে। এর ফলে সেখানকার কোটি কোটি মুসলিমরা সমস্যায় পড়তে পারেন।’ ইউএনবি।

sheikh mujib 2020