advertisement
আপনি দেখছেন

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যার অভিযোগে করা মামলায় নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক আদালতে (আইসিজে) শুনানি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টায় শুরু হওয়া এ মামলার শুনানি চলবে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত। এ সময় আদালতে মিয়ানমার সরকারের উপদেষ্টা অং সান সু চি’কে নির্বাক হয়ে বসে থাকতে দেখা যায়।

suci pettision hege2হেগে আদালতে নির্বাক সু চি

শুনানির শুরুতেই রোহিঙ্গা মুসলিমদের হত্যাকাণ্ড বন্ধে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে গাম্বিয়ার আইন ও বিচারমন্ত্রী আবুবকর মারি তামাবাদু বলেন, বর্বর এবং নৃশংস এসব কাজ। যা সারা বিশ্বের মানুষের বিবেককে আঘাত করেছে। এই গণহত্যা বন্ধ করতে হবে।

এরপরই মামলার প্রধান বিচারপতি আব্দুল কাই আহমেদ ইউসুফ অভিযোগ পত্র পড়ে শোনান। পরে তিনি গাম্বিয়ার পক্ষে অ্যাডহক বিচারক হিসেবে গাম্বিয়ার নাভি পিল্লাই এবং মিয়ানমারের পক্ষে প্রফেসর ক্লাউস ক্রেসকে নিয়োগ দেন। তারা মামলার বিচারপ্রক্রিয়ার শুরুতে শপথ নেন।

আইসিজের রেজিষ্ট্রার ফিলিপ গোতিয়ে অন্তর্বর্তী পদক্ষেপের নির্দেশনা চেয়ে গাম্বিয়ার করা এক আবেদনের বিস্তারিত পড়ে শোনান। পরে অধ্যাপক পায়াম আখাভান রাখাইনে গণহত্যার বিস্তারিত তুলে ধরে বলেন, মঙ্গলবার জাতিসংঘের গণহত্যা সনদের ৭০তম বার্ষিকী। কিন্তু সনদের শর্তানুযায়ী গণহত্যা বন্ধ করেনি মিয়ানমার।

এর আগে বিচারপ্রক্রিয়ায় মিয়ানমারের পক্ষে লড়ার জন্য সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় দেশটির উপদেষ্টা অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন একটি দল হেগে পৌঁছান। গাম্বিয়ার প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশটির আইন ও বিচার মন্ত্রী আবুবকর মারি তামাবাদু।

বাংলাদেশ এই মামলায় সরাসরি অংশগ্রহণ করছে না। তবে বিচারকদের বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সহায়তা করার জন্য পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হকের নেতৃত্বে কর্মকর্তা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি এবং বিশেষজ্ঞদের একটি দল শুনানিতে উপস্থিত আছেন। ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) পক্ষ থেকেও প্রতিনিধিরা উপস্থিত আছেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর পূর্বপরিকল্পিত সহিংসতা চালায় মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এই সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর ওপর তারা গণহত্যা ও ধর্ষণসহ অমানবিক নির্যাতন চালায়। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে প্রায় নয় লাখ রোহিঙ্গা।