advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 24 মিনিট আগে

সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে ফের যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন বরিস জনসন। বৃহস্পতিবারের সাধারণ নির্বাচনে বড় জয় পেয়েছে তার নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টি।

british pm boris johnson 1বরিস জনসন

ব্রিটিশ গণমাধ্যমগুলো বলছে, বৃহস্পতিবারের ভোটে ৬৫০ আসনের মধ্যে ৬৪৯টির ফলাফল পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৩৬৪ আসনই জিতে নিয়েছেন ব্রেক্সিটের পক্ষের দলটি। অন্যদিকে জেরেমি করবিনের নেতৃত্বাধীন লেবার পার্টি ২০৩ আসনে জয় পেয়েছেন।

নির্বাচনে জিতেই জনসন হুংকার দিয়ে বলেছেন, ‘কোনো কিন্তু নয়, কোনো হয়তোবা নয়, ৩১ জানুয়ারির মধ্যেই ব্রেক্সিট হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ব্রেক্সিটকে মিশন হিসেবে নিয়েছেন তিনি ও তার দল। এর জন্য দিন রাত কাজ করে যাবেন তারা। ভোটের মাধ্যমে জনগণ তাদের ওপর যে দায়িত্ব দিয়েছেন সেই আস্থার প্রতিদান দিতে চায় তার দল।

ইউরোপ থেকে বেরিয়ে যুক্তরাজ্য তাদের নিজস্ব রূপে আইন, সীমানা, অর্থ, বাণিজ্য ও অভিবাসনের নিয়ন্ত্রণ করতে চায় বলে জানান তিনি।

এসময় তিনি উল্লেখ করেন,দেশের সাধারণ নির্বাচনের ফল ‘এক-জাতি কনজারভেটিভ সরকারের’ জন্য নতুন শক্তিশালী ম্যান্ডেট।

দেশটিতে ২০১৬ সালের এক গণভোটে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগের (ব্রেক্সিট) পক্ষে রায় দেয় জনগণ। এ নিয়ে ক্ষমতার পালাবদল হলেও ব্রেক্সিট এখন পর্যন্ত বাস্তবায়িত হয়নি।

ব্রেক্সিট প্রশ্নে গত তিন বছর ধরে সংসদের অচলাবস্থা নিরসনে দুই বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো গতকাল পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট দেন ব্রিটিশরা। এবারের নির্বাচনে জনসনের দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় ব্রেক্সিট ইস্যুর আশু সমাধান হবে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ফলে আগামী ৩১ জানুয়ারির মধ্যে দেশটির ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাবার পথ সুগম হবে।

sheikh mujib 2020