advertisement
আপনি দেখছেন

পার্সেল পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে পাইলটবিহীন বিমান বা ড্রোন ব্যবহারের নতুন কার্যক্রম শুরু করেছে ইরানের ডাক বিভাগ। রোববার একটি কোম্পানির পার্সেল ড্রোনের মাধ্যমে দেশটির ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ আযারি জাহরোমির বাসায় পৌঁছে দেয়ার মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

iran ict minister azariড্রোন হাতে ইরানের ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি (আইসিটি) মন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ আযারি জাহরোমি

ড্রোনের মাধ্যমে পার্সেল পৌঁছে দেয়ার একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগমাধ্যম টুইটারে পোস্ট করে দেশটির আইসিটি মন্ত্রী আযারি লেখেন, পাইলটবিহীন বিমান বা ড্রোনের মাধ্যমে দেশের যেকোন স্থানে পার্সেল পৌঁছে দেওয়ার প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরো লেখেন, ডাক বিভাগের এই ড্রোন দেশের যে কোন জায়গায় গিয়ে প্রেরকের কাছ থেকে পার্সেল নিয়ে তা প্রাপকের কাছে পৌঁছে দিতে সক্ষম। জরুরি ত্রাণ সরবরাহের ক্ষেত্রেও ড্রোন ব্যবহার করা যায় কিনা তা নিয়ে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সঙ্গে আলোচনা করা হচ্ছে।

মন্ত্রীর টুইটারে প্রকাশিত ওই ভিডিওতে দেখা যায়, ড্রোনের মাধ্যমে একটি কোম্পানির পার্সেল আইসিটি মন্ত্রীর দপ্তরে পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। আর কন্ট্রোল রুম থেকে ড্রোনটি পরিচালনা করছেন ডাক বিভাগের কর্মীরা।

এর আগে জাওয়াদ আযারি জানান, ড্রোন সার্ভিসের মাধ্যমে হাসপাতাল ও দ্বীপগুলোতে ওষুধসহ বিভিন্ন পার্সেল দ্রুত পৌঁছে দেওয়ার মাধ্যমে দেশের জনগণ উপকৃত হবেন। বর্তমান আধুনিক বিশ্বে খুবই কম সংখ্যক দেশে এই ব্যবস্থা রয়েছে।