advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

পৌষের শুরুতেই বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে নেমে এসেছে তীব্র শীত। উপমহাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল ইতোমধ্যে ঢাকা পড়েছে বরফের চাদরে। গত দুই দিনের শৈত্যপ্রবাহের ফলে হাড় কাঁপানো ঠাণ্ডায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে দেশের জনজীবন। অথচ তীব্র তাপদাহে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া।

temparature sign

সিডনির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, দাবানলের কারণে দেশটিতে তাপমাত্রার অতীতের সকল রেকর্ড ভেঙে গেছে। বুধবার নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। যা দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

এর আগে মঙ্গলবারও দেশটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪০ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়ার রেকর্ড করা হয়। এর আগে অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২০১৩ সালে। ওই বছর জানুয়ারিতে দেশটির সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা চলতি বছরের ১৭ ও ১৮ ডিসেম্বর পর পর দুই দিনে ভেঙে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়।

দেশটির আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, চলতি মাসে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলের তাপমাত্রা ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠতে পারে।

australia temp

অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, চলতি মৌসুমে দেশটির বিশাল এলাকা দাবানলে পুড়তে থাকার কারণে তাপমাত্রা অতিরিক্ত মাত্রায় বেড়ে গেছে। যার ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন দেশটির বাসিন্দারা। এমনকি নিউ সাউথ ওয়েলসে দাবানল ভয়াবহ আকার ধারণ করায় বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যটিতে সাত দিনের জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দাবানলের কারণে নিউ সাউথ ওয়েলস ও সিডনিতে শতাধিক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। সেখানকার কর্তৃপক্ষ দাবানল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। তবে এরই মধ্যে বিষাক্ত কালো ধোঁয়ায় ভরে গেছে সিডনির আকাশ-বাতাস। যার ফলে চরম স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়েছে সেখানকার বাসিন্দারা।

sheikh mujib 2020