advertisement
আপনি দেখছেন

চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করেছে বেইজিং। সম্প্রতি এক ফোনালাপে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বলেন, তাদের দেশের হংকং, তিব্বত, তাইওয়ান ও শিনজিয়াং এর ব্যাপারে ওয়াশিংটন যেসব নেতিবাচক কথা বলছে এবং কর্মকাণ্ড করছে তা নিয়ে বেইজিং ভীষণ উদ্বিগ্ন।

trump si jin ping

শি জিনপিং ট্রাম্পকে আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের এসব কর্মকাণ্ড চীনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের শামিল। পাশাপাশি ওয়াশিংটনের এসব কর্মকাণ্ডের ফলে দেশটির জাতীয় স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এবং দুই দেশের মধ্যকার যে আস্থা রয়েছে তা নষ্ট হচ্ছে। তাই মার্কিন সরকারকে এ ধরনের হস্তক্ষেপ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান শি।

ট্রাম্পের অনুরোধের প্রেক্ষিতেই এ ফোনালাপ হয়েছে বলে জানিয়েছে চীনের বার্তা সংস্থা শিনহুয়া। এদিকে ওই টেলিফোনালাপের পর পরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট একটি টুইট করেন।

টুইট বার্তায় ট্রাম্প দাবি করেন, ফোনালাপে চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে শি জিনপিংয়ের সঙ্গে তার খুব ভালো আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় দুই দেশের সম্ভাব্য বাণিজ্য চুক্তি থেকে শুরু করে হংকং ও উত্তর কোরিয়ার বিভিন্ন বিষয় নিয়েও কথা হয়। চীন এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি বিভিন্ন পণ্য আমদানি শুরু করেছে বলেও দাবি করেন ট্রাম্প।

প্রসঙ্গত, চীন ও মার্কিন প্রেসিডেন্টের মধ্যকার এই ফোনালাপের এক সপ্তাহ আগেই দুই দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক শক্তিশালী করার লক্ষ্যে 'ফেজ-ওয়ান' নামের একটি চুক্তির ব্যাপারে একমত হয় ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের প্রতিনিধিরা। চুক্তি অনুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি কৃষি যন্ত্রপাতিসহ বিভিন্ন পণের আমদানি বাড়াবে চীন এবং এর বিনিময়ে তাদের দেশে চীনা পণ্য প্রবেশের ওপর ধার্য করা শুল্ক দূর করবে যুক্তরাষ্ট্র।