advertisement
আপনি দেখছেন

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ঘিরে এবার উত্তরপ্রদেশের মতো তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে ভারতের বিহার রাজ্যে। আইনের বিরোধিতায় আরজেডির ডাকা বনধকে কেন্দ্র করেই ছড়ায় সংঘর্ষ। এ সময় গুলিতে অন্তত ১৩ জন আহত হয়েছে। পোড়ানো হয়েছে গাড়ি। ছুরিকাঘাতের ঘটনাও ঘটেছে বলে জানা গেছে।

clash in bihar

স্থানীয় গণমাধ্যম বলছে, রাজধানী পাটনায় শনিবার সকাল থেকেই বনধ সমর্থনকারী আরজেডি এবং কংগ্রেস পথে নেমে পড়ে। সংশোধিত নাগরিক আইন বাতিলের দাবিতে বিভিন্ন স্থানে শুরু হয় অবরোধ। উত্তর বিহারের সর্বত্র বনধের কারণে ট্রেন চলাচল বিপর্যস্ত হয়।

বিরোধী মুখ তথা আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদবের নেতৃত্বে বনধ পালনকারীরা আইন বাতিলের জন্য বিশাল জমায়েত করে।

এদিকে, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার এনআরসি বিরোধিতায় সরব হন। এতে এনডিএ শিবিরে প্রবল চাঞ্চল্য ছড়ায়। বেলা গড়াতেই বনধ সমর্থকদের উগ্র রূপ আরও বাড়তে থাকে। পাটনার কাছে আচমকা দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ প্রবল আকার নেয়। ভিড়ের মধ্যেই ছুরি মারা হয় কয়েকজনকে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ এলেও সংঘর্ষ বড়সড় আকার নেয়। অভিযোগ উঠেছে, গুলি চলেছে দেদারছে। তাতে জখম হয়েছেন কমপক্ষে ১৩ জন। কয়েকজন ছুরিকাঘাতে মারাত্মক আহত হয়েছে। এমনকি সাংবাদিকরাও আহত হয়েছেন।

খবরে বলা হয়েছে, পাটনার পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ। বিহারের অন্যত্র ছড়াচ্ছে অশান্তি। বেশ কিছু পুলিশের জিপ ভাঙচুর হয়েছে। উত্তর প্রদেশ, দিল্লিতে যেমন হিংসাত্মক আকার নিয়েছে আন্দোলন, তেমনই অবস্থা পাটনার। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় আসাম ও ত্রিপুরার রেশ ধরে একের পর এক রাজ্যে ছড়াচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধী বিক্ষোভের রেশ।