advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

মার্কিন বাহিনী কর্তৃক ইরানের শীর্ষ জেনারেল কাশেম সোলায়মানি হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানানোয় কসভোর এক মুসলিম নারীকে এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। খবর পার্সটুডে।

muslim women imprisoned in kosovo

ইকবালে বেরিশা হুদুতি নামক ঐ মুসলিম নারীর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সহিংসতা উস্কে দেয়ার অভিযোগে আদালতে শাস্তির আবেদন করেন কসভোর এক সরকারি উকিল। আদালত তা গ্রহণ করে অভিযোগ প্রমাণের ভিত্তিতে হুদুতিকে এক মাসের কারাদণ্ড দেন।

কসভো আদালতের স্পেশাল প্রসিকিউশনের প্রধান ব্লেরিম ইসুফাজ বলেন, হুদুতি কসভোর একটি ইসলামপন্থী দলের সভাপতি। সামজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি কাশেম সোলায়মানি হত্যার জন্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কড়া সমালোচনা করেন এবং এর প্রতিশোধ নিতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন। এ কাজটি করে তিনি তার সমর্থকদের প্রকাশ্যে উস্কে দিয়েছেন যাতে করে তারা সহিংস ঘটনায় জড়িয়ে পড়ে।

কসভোর আইনে বলা আছে, সহিংসতা ছড়ানোর জন্য প্রকাশ্যে উস্কে দেয়া একটি অপরাধ। তাই প্রাপ্ত অভিযোগের ভিত্তিতে হুদুতিকে গত ৭ জানুয়ারি আটক করা হয়। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে এক মাসের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

গত ৩ জানুয়ারি কাশেম সোলায়মানি হত্যার পরদিন হুদুতি তার ফেসবুক পেজে লেখেন, সোলায়মানি কখনো মরবে না। যুক্তরাষ্ট্র তাকে হত্যা করে চরম অন্যায় করেছে। এ অন্যায়ের প্রতিশোধ নেয়া হবে এবং যার কোনো সীমা থাকবেনা।

এরপর আরেকটি পোস্টে তিনি লেখেন, মার্কিন বাহিনী সোলায়মানির সঙ্গে ইরাকের শীর্ষ শিয়া নেতাকেও হত্যা করেছে। তাই মার্কিন বাহিনীর সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মুখোমুখি হওয়ার আগেই সবাইকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে।

কসভোর সংবাদমাধ্যমে হুদুতির এই পোস্ট দুটি নিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি হলে তিনি তার ফেসবুক পেজ থেকে সেগুলো মুছে দেন। এর প্রেক্ষিতে তিনি বলেন, তার বক্তব্যকে বিকৃত করে উপস্থাপন করছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম।

sheikh mujib 2020