advertisement
আপনি দেখছেন

করোনা ভাইরাস আমিষভোজীদের শাস্তি দিতেই অবতার হিসেবে পৃথিবীতে এসেছে। এ থেকে চীনাদের শিক্ষা নেওয়া উচিত। এসব বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন ভারতের হিন্দু মহাসভার সর্বভারতীয় সভাপতি চক্রপাণি।

hindhu mohasava india corona

হিন্দুত্ববাদী এ সংগঠনটির সভাপতি এর আগে বলেছিলেন, গরুর গোবর গায়ে মাখলে ও গোমূত্র খেলেই করোনাভাইরাস সেরে যাবে। যা নিয়ে তীব্র হাস্যরস সৃষ্টি হয়েছিল।

এবার তিনি নতুন তত্ত্ব দিয়ে বললেন, করোনাভাইরাস আসলে ভগবানের অবতার। আমিষভোজীদের শাস্তি দিতে ও ক্ষুদ্র প্রাণিদের রক্ষার্থেই এই ভাইরাসের পৃথিবীতে আগমন।

তিনি আরো বলেন, 'করোনাভাইরাস পৃথিবীতে এসেছে কিছু বার্তা দিতে। যারা পৃথিবীর ক্ষুদ্র প্রাণীগুলোকে মেরে খেয়ে ফেলছে, তাদের মৃত্যুর মতো চরম শাস্তি দিতেই করোনাভাইরাস পৃথিবীতে এসেছে। ভগবান নরসিংহ অবতার হয়ে এসেছিলেন রাক্ষসদের ধ্বংস করতে ও শিক্ষা দিতে। চীনাদের এর থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিৎ।'

এদিকে, হিন্দু মহাসভা প্রধানের এসব বক্তব্যের সমালোচনা করছেন অনেকেই। তারা বলছেন, আমিষভোজীরাই যে হিন্দু মহাসভা প্রধানের টার্গেট, সেটা তার মন্তব্যে স্পষ্ট।

চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের উদ্দেশে স্বামী চক্রপাণি বলেন, সে দেশের সরকারের উচিত করোনাভাইরাসের একটি মূর্তি নির্মাণ করে তার কাছে ক্ষমা চাওয়া। চীনের সব আমিষভোজীদের দিয়েও তার কাছে ক্ষমা চাওয়ানো। তাহলেই এই অবতার নিজের জগতে ফিরে যাবে।

ভারতে এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কোনো আশঙ্কা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, ভারতীয়রা পূজা করেন, গোহত্যা বিরোধী। ফলে নিজের থেকেই ভারতীয়দের শরীরে একটি স্বয়ং প্রতিরোধ শক্তি গড়ে উঠেছে।