advertisement
আপনি দেখছেন

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) কারণে ভারতে থাকা মুসলিমদের ব্যাপক বঞ্চনার শিকার হতে হবে বলে অভিযোগ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল প্যানেল আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতাবিষয়ক কমিশন, ইউএসসিআইআরএফ। বুধবার তাদের প্রকাশিত এক নথিতে এ অভিযোগ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের এমন অভিযোগে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে ভারত।

united states commented on caa

এতে বলা হয়, ভারতে এই আইন প্রয়োগের মাধ্যমে মুসলিমরা ব্যাপক বৈষম্যের শিকার হবেন। যার প্রভাব ইতোমধ্যেই দেখা গেছে। দেশটির বিভিন্ন জায়গায় মানুষ এ আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে।

ইউএসসিআইআরএফ জানায়, আইনটি পাশের পর থেকেই ভারতে এর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়া সেখানে জাতীয় নাগরিক পঞ্জি (এনআরসি) বাস্তবায়নের প্রস্তাবের জেরে জনমনে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

সিএএ অনুযায়ী, ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে প্রতিবেশী পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে নিপীড়নের শিকার হয়ে পালিয়ে আসা অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেয়ার বিধান করা হয়েছে। কিন্তু সেখানে আশ্রয় নেয়া মুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। 

গত বছর সিএএ পাশ করেছে ভারতের পার্লামেন্ট। কিন্তু পাশ হওয়ার পর থেকেই দেশটির বিভিন্ন প্রান্তে সব ধর্মের মানুষ এর বিরোধিতায় বিক্ষোভ শুরু করছে। বিক্ষোভ দমনে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সহিংস ঘটনায় দুই ডজনের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটে।

সিএএ পাশ হওয়ার পরপরই এর সমালোচনা করে ইউএসসিআইআরএফ জানায়, আইনটি ভুল পথে ব্যবহার করে পরিস্থিতি বিপজ্জনক দিকে ধাবিত করতে যাচ্ছে ভারত সরকার। সে সময় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ-সহ অন্যান্য নেতাদের বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরোপের দাবি জানায় সংস্থাটি।

এদিকে, ইউএসসিআইআরএফ-এর মুসলিমদের বৈষম্য নিয়ে করা মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ভারত। দেশটির দাবি, সিএএ'র লক্ষ্য হলো সংশ্লিষ্ট দেশগুলোতে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার মানুষকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দেয়া। কাউকে বৈষম্যের জন্য নয়।

sheikh mujib 2020