advertisement
আপনি দেখছেন

জার্মানির একটি সিসা বারে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১১ জন হয়েছে। নিহতদের মধ্যে পাঁচজনই তুর্কি নাগরিক। বুধবার স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় হানাউ শহরের ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

extremist attacks in germany

জানা যায়, অভিযুক্ত হামলাকারী টোবিয়াস জার্মান নাগরিক। সে উগ্রবাদী শ্বেতাঙ্গ।

পুলিশ জানায়, হামলার পর টোবিয়াস আত্মহত্যা করেছে। আত্মহত্যার আগে নিজের মাকেও হত্যা করেছে সে। অভিবাসীদের হত্যার উদ্দেশ্যেই সে এই হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে। এর আগে কোনো ধরনের অপরাধের রেকর্ড ছিল না তার।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, সামাজিক যোগাযোদমাধ্যমে অভিযুক্ত হামলাকারীর তৎপরতা দেখে তাকে উগ্র জাতীয়তাবাদী হিসেবে শনাক্ত করেছে পুলিশ। হামলার জন্য টোবিয়াস যে অস্ত্রটি ব্যবহার করেছে সেটির লাইসেন্স ছিল। এ ছাড়া তার গাড়ি থেকে প্রচুর ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে, জার্মান চ্যান্সেলর এঙ্গেলা মার্কেল বলেন, এ হামলা হয়েছে জাতিবিদ্বেষের কারণে এবং তা স্পষ্ট। জাতিবিদ্বেষ ও ঘৃণা একটি বিষে পরিণত হয়েছে জার্মানিতে। এর কারণে বহু অপরাধ সংঘঠিত হচ্ছে।

হামলার ঘটনায় তুর্কি নাগরিক নিহত হওয়ায় তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোয়ান বলেন, জার্মানিতে সিসা বারে বন্দুক হামলায় অন্তত পাঁচজন তুর্কি নাগরিক নিহত হওয়ায় তিনি মর্মাহত। জার্মান সরকার এ বিষয়ে প্রকৃত তদন্ত করে হামলার প্রকৃত উদ্দেশ্য উদঘাটন করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।