advertisement
আপনি দেখছেন

করোনা আতঙ্কে চীনের পর এবার দক্ষিণ কোরিয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত দুই জনের মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে যাওয়ায় পরিস্থিতি বিবেচনায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী চুং সি-কিয়োন।

corona south korea

বিবিসির বরাতে জানা যায়, দ্রুতই ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়তে পারে, এমন আশঙ্কা থেকে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের শহর দেয়াগো ও চেয়োংদোকে ‘বিশেষ নজরদারি এলাকা’ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনজন সেনার শরীরে ভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় সেনা ঘাঁটিগুলো বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে।

এছাড়া দেয়াগো শহরের শপিংমল ও সিনেমা হলগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। গণপরিবহন একেবারে সীমিত পর্যায়ে নিয়ে আসা হয়েছে। ফলে শহরের রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে গেছে।

স্থানীয় এক অধিবাসীর বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শহরের পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে কোথাও বোমা হামলা হয়েছে। অনেকটা জঙ্গি হামলার মতো পরিস্থিতি বিরাজ করছে। শহরের একটি চার্চে প্রার্থনারত ৯০ জন মানুষের মধ্যে ভাইরাসটির সংক্রমণ ধরা পড়ার পর থেকে বাসিন্দাদের ঘরে থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

এদিকে চীনে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা কমার কোনো লক্ষণই নেই। দিনকে দিন তা বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছে আরো ১০৯ জন। এ নিয়ে শুধু চীনেই মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ২৩৫৪ জনে। আর চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত মারা গেছে আরো ১৫ জন। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২৩৬৯ জনের।

শনিবার চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের বরাত দিয়ে সিএনএন জানায়, মৃতদের মধ্যে ১০৬ জনই হুবেই প্রদেশের। করোনার উৎপত্তিস্থল এই প্রদেশটিতেই এখন পর্যন্ত মারা গেছে অন্তত ২২৫০ জন। এ ছাড়া চীনে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯৭ জন। এ নিয়ে সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৭৬ হাজার ২৮৮ জনে। বিশ্বের অন্যান্য দেশ মিলে এই সংখ্যা ৭৭ হাজার ৭৬৭ জন।