advertisement
আপনি দেখছেন

অবশেষে আফগানিস্তানে আমেরিকা ও তালেবানের মধ্যে সামরিয়ক যুদ্ধবিরতি শুরু হয়েছে। আর সাময়িক যুদ্ধবিরতি কার্যকর হলে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি চুক্তি স্বাক্ষর হবে বলে জানিয়েছে উভয় পক্ষ। কাতার, রাশিয়া ও পাকিস্তানে এক বছরের বেশি সময় ধরে আলোচনা করার পরই এমন সিদ্ধান্তে উপনীত হলো আমেরিকা ও তালেবান।

us taliban ceasefire

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা বলছে, আফগানিস্তানে তালেবান, যুক্তরাষ্ট্র ও আফগান নিরাপত্তাবাহিনীর মধ্যে সাময়িক যুদ্ধবিরতি শুরু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে এক সপ্তাহের এই চুক্তি কার্যকর শুরু হয়।

এর আগে গতকাল টেলিভিশন ভাষণে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি ঘোষণা দেন, সহিংসতা কমিয়ে আনার সাময়িক চুক্তি স্থানীয় সময় শুক্রবার মধ্যরাত থেকে কার্যকর শুরু হবে। এই সপ্তাহে আফগান সেনাবাহিনী রক্ষণাত্মক সক্রিয় অবস্থান বজায় রাখবে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেছেন, ২৯ ফেব্রুয়ারি চুক্তি স্বাক্ষরের পর আফগানিস্তানের বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে আলোচনা শুরু হবে৷ সেখানে স্থায়ী যুদ্ধবিরতি ও আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ রাজনীতি নিয়ে আলোচনা হবে৷

পাকিস্তানে তালেবানের এক সূত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানিয়েছেন, ২৯ তারিখ চুক্তি হলে তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যে ১০ মার্চ আলোচনা শুরু হবে৷

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অবশ্য স্বীকার করেছেন যে, চ্যালেঞ্জ এখনো আছে৷ তবে যতখানি অগ্রগতি হয়েছে তাতে আশান্বিত হওয়া যায় বলে মনে করেন তিনি৷

প্রসঙ্গত, এর আগে গত সেপ্টেম্বরে একবার দুই পক্ষ চুক্তির কাছাকাছি চলে গিয়েছিল৷ কিন্তু সংঘাত চলতে থাকায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শেষ মুহূর্তে সরে যান।

গত ১৮ বছর ধরে তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ চলে আসছে৷ আফগানিস্তানে এখনো ১২ থেকে ১৩ হাজার মার্কিন সৈন্য রয়েছে৷

এদিকে, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রীর ওই ঘোষণার কিছুক্ষণ পর তালেবান মুখপাত্র জবিহউল্লাহ মুজাহিদও এক বিবৃতিতে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি চুক্তি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।