advertisement
আপনি দেখছেন

চীনে মরণব্যাধী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে কম মানুষ মারা গেছেন। এদিন দেশটিতে ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। পাশাপাশি আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কমে এসেছে। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪০৬ জন। তবে চীনের বাইরে ভাইরাসটির সংক্রমণ ও তাতে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ক্রমশই বাড়ছে।

corona virus in china 3

দেশটির বাইরে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে পার্শ্ববর্তী দেশ ইরানে। সেখানে অর্ধ শতাধিকের বেশি মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছেন দেশটির পার্লামেন্টের এক সদস্য। তবে ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বলা হচ্ছে, দেশটিতে ভাইরাসের কারণে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ৯৫ জন।

সম্প্রতি পার্লামেন্টের ওই সদস্য (নাম উল্লেখ করা হয়নি) বলেন, ইরানের কোম অঞ্চলে ইতোমধ্যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫০ জনের বেশি মারা গেছেন। ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যথাযথ তথ্য জনসম্মুখে প্রকাশ করছে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

আক্রান্তের দিক দিয়ে চীনের পরেই অবস্থান করছে প্রতিবেশী দেশ দক্ষিণ কোরিয়া। সেখানে এখন পর্যন্ত ১১৪৬ জনের শরীরে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছেন অন্তত ১১ জন।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, জাপানে এখন পর্যন্ত অন্তত ৮৫০ জনের শরীরে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসটির সন্ধান পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মারা গেছেন অন্তত ছয়জন। এ ছাড়া ইতালিতে মারা গেছেন অন্তত ১১ জন। সেখানে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৯৩ জন। আতঙ্কে দেশটির কয়েকটি শহর অবরুদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এর বাইরে হংকংয়ে তিনজনের মৃত্যুসহ আক্রান্ত হয়েছেন ৮৫ জন। তাইওয়ান, ফ্রান্স ও ফিলিপাইনে মারা গেছেন একজন করে। এছাড়া সিঙ্গাপুরে ৯১ জন, যুক্তরাষ্ট্রে ৫৩ জন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে ১৭ জনসহ মালয়েশিয়া, ভারতসহ আরো প্রায় ৪৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস।

উল্লেখ্য, চীনসহ পুরো বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭৬০ জনেরও বেশি। আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৭ হাজার ৪৭৬ জন।

গত বছরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম ভয়াবহ এই ভাইরাস শনাক্ত হয়। এখন পর্যন্ত দেশটিতে যারা আক্রান্ত ও মারা গেছে, তাদের অধিকাংশই এই উহানের বাসিন্দা।

sheikh mujib 2020