advertisement
আপনি দেখছেন

পরকীয়ার বিষয়ে শাস্তির বিধান উঠে যাওয়ায় ভারতে এর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৫৫ শতাংশ ভারতীয় বিয়ের পর সঙ্গীকে না জানিয়ে পরকীয়ায় জড়ান। এর মধ্যে আবার ৫৬ শতাংশই নারী।

alien symbol

ভারতের প্রথম এক্সট্রাম্যারিটাল ডেটিং অ্যাপ গ্লিডেন বিবাহিত ব্যক্তিদের ওপর এ সমীক্ষা পরিচালনা করে। কলকাতাসহ দেশটির আটটি শহরের এক হাজার ৫২৫ জন বিবাহিত ব্যক্তিকে পরকীয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়।

সমীক্ষায় দেখা যায়, ৪৮ শতাংশ ভারতীয়ই মনে করে বিয়ের পর স্বামী বা স্ত্রী ছাড়া অন্য কোনো নারী বা পুরুষের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে থাকা যায়। এ ক্ষেত্রে ৪৬ শতাংশই মনে করে সঙ্গীকে ঠকানোর মধ্যে দোষের কিছু নেই। আর ৬৯ শতাংশ বলেন পরকীয় করতে গিয়ে ধরা খেলে সঙ্গী তাদের ক্ষমা করে দেবে।

অন্যদিকে, সমীক্ষায় অংশ নেওয়া ৭ শতাংশ ভারতীয় জানান, তাদের সঙ্গী যদি পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা পড়ে তাহলে কিছু না ভেবেই সঙ্গীকে ক্ষমা করে দেবেন। আর ৪০ শতাংশ জানান, প্রয়োজন হলে সঙ্গীকে ক্ষমা করবেন তারা।

প্রায় ৪৯ শতাংশ ব্যক্তি জানান, নিজের স্বামী বা স্ত্রী ছাড়াও অন্য কোনো নারী বা পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক আছে তাদের। এর মধ্যে স্বাভাবিক যৌন সম্পর্ক আছে ৪৭ শতাংশের। ওয়ান নাইট স্ট্যান্ড (এক রাতের জন্য যৌন সম্পর্ক) করেছেন ৪৬ শতাংশ।

সমীক্ষার পরিসংখ্যান তুলে ধরে গ্লিডেন দাবি করে, পুরুষের তুলনায় নারীরা বেশি পরকীয়ায় জড়ান। বিয়ের পর ৫৩ শতাংশ নারী অন্য পুরুষদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে লিপ্ত হন। যেখানে পুরুষরা লিপ্ত হন ৪৩ শতাংশ। আবার স্বামী ব্যতীত অন্য পুরুষের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন ৪১ শতাংশ নারী। যেখানে নিজের স্ত্রী ব্যাতীত অন্য নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেন মাত্র ২৬ শতাংশ পুরুষ।

উল্লেখ্য, ভারতে ২০১৭ সালের এপ্রিলে নিজেদের অ্যাপ কার্যক্রম শুরু করে গ্লিডেন। বর্তমানে তাদের সদস্য সংখ্যা প্রায় আট লাখ।

sheikh mujib 2020