advertisement
আপনি দেখছেন

ইরানি পরিচালক মোহাম্মাদ রাসুলফের চলচ্চিত্র নির্মাণের ওপর ২০১৭ সালে নিষেধাজ্ঞা জারি করে দেশটির সরকার। এ কারণে গোপনে ‘দেয়ার ইজ নো ইভল’ নামে একটি চলচ্চিত্রের চিত্রায়ণ করেন তিনি। সর্বোচ্চ শাস্তি বা মৃত্যুদণ্ড নিয়ে তার নির্মিত সেই সিনেমাটিই এবার জার্মানির বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সেরা হয়েছে।

mohammad rasul

আগে নির্মিত সিনেমার কারণে বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা থাকায় বার্লিনে যেতে পারেননি মোহাম্মদ রাসুলফ। তার পরিবর্তে উৎসবে যোগ দেন মেয়ে বারান। ওই চলচ্চিত্রে অভিনয় করা মেয়েই বাবার পক্ষে পুরষ্কারটি গ্রহণ করেন।

তবে ভিডিও কলের মাধ্যমে রাসুলফ জানান, তার এই চলচ্চিত্রে মানুষের দায়িত্ব নেয়ার গল্প তুলে ধরেছেন। তাদের কথা বলার চেষ্টা করা হয়েছে, যারা কোনো কিছু হলেই নিজে দায়িত্ব না নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের কথা বলে দায় এড়িয়ে যায়। ‘না’ বলতে পারাই তাদের শক্তি।

এ বিষয়ে জুরি বোর্ডের সভাপতি জেরেমি আয়রনস বলেন, রাসুলফের বানানো সিনেমায় চারটি মৃত্যুদণ্ড নিয়ে আলাদা চারটি গল্প রয়েছে। তাতে দেখানো হয়েছে, কর্তৃত্ববাদী সরকারের তৈরি করা জালে অসংখ্য সাধারণ মানুষ বাধা পড়ে আছে, তাদের মানবিকতাও ক্রমশ হারিয়ে যাচ্ছে।

mohammad rasul 1

উৎসবে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে গর্ভপাত নিয়ে মার্কিন পরিচালক এলাইজা হিটম্যানের বানানো ‘নেভার রেয়ারলি সামটাইমস অলওয়েজ’।