advertisement
আপনি দেখছেন

কাতারের রাজধানী দোহায় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেয়া তালেবান প্রতিনিধিনের অন্যতম সদস্য শের মোহাম্মাদ আব্বাস স্তানাকজাই বলেছেন, আফগান সরকারকে স্বীকৃতি দেবে না তালেবান। আফগানিস্তানের বার্তা সংস্থা খামা প্রেস গতকাল সোমবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

 taliban will not recognize afgan govt

গত শনিবার দোহায় যুক্তরাষ্ট্র-তালেবান ঐতিহাসিক চুক্তি স্বাক্ষরের সময় দুই পক্ষ আলোচনা করেছে। সে আলোচনাতেই তিনি মন্তব্যটি করেছেন।

স্তানাকজাই বলেন, আফগানিস্তানে মার্কিন সেনাদের উপস্থিত থাকা অবস্থায় আফগানিস্তান সরকারের নিজস্ব কোনো ক্ষমতা থাকে না। তাই এখন যে সরকার আছে তাদের কোনো স্বীকৃতি নেই। তালেবানদের সব সদস্য এটি বিশ্বাস করে। মার্কিন বাহিনী আফগানিস্তান থেকে চলে যাওয়ার পর সকল পক্ষের মধ্যে সংলাপের আয়োজন করার চেষ্টা করবে যাতে দেশে সর্বসম্মত একটি সরকার প্রতিষ্ঠা করা যায়।

গত শনিবার তালেবানদের সঙ্গে ঐটিহাসিক শান্তিচুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর ফলে দীর্ঘ ১৮ বছর ধরে চলা যুদ্ধ ও রক্তপাতের অবসান হলো। কাতারের রাজধানী দোহাতে বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্র ও সংস্থার উপস্থিতিতে এ শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর হয়। ঐতিহাসিক এ চুক্তি বাস্তবায়িত হলে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের প্রত্যাহার করে নেবে যুক্তরাষ্ট্র।

চুক্তি অনুযায়ী আফগানিস্তান থেকে সব ধরনের সামরিক কার্যক্রম সরিয়ে নেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। প্রাথমিকভাবে ১৩ হাজার সৈন্যের মধ্যে থেকে প্রায় ৫ হাজার ৪০০ জনকে ফিরিয়ে আনার পথ তৈরি হবে। সেখান থেকে মার্কিন সেনারা চলে যাওয়ার পর তালেবান ও আফগান সরকার মিলে একটি যৌথ সরকার গঠন করে আফগানিস্তানকে উন্নতির দিকে নিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে আফগানিস্তানে তৎকালীন তালেবান সরকারকে উৎখাতে আগ্রাসন চালায় মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট। এরপর থেকেই সেখানে মার্কিন সেনা মোতায়েন রেখেছে দেশটি। প্রায় দুই দশক ধরে মার্কিন বাহিনীর বিভিন্ন হামলায় নিহত হয়েছে কয়েক লাখ সাধারণ নাগরিক।

এদিকে, দীর্ঘদিনের এই সংকট সমাধানের আগে আশায় বুক বেঁধেছেন আফগানিস্তানের মানুষ। তাদের বিশ্বাস, আফগানিস্তানে আর কোনো সহিংস ঘটনা ঘটবে না। এই উদ্যোগকে তারা পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে স্বাগতও জানিয়েছেন।