advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি তালেবান ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে ঐতিহাসিক এক চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে, যার মাধ্যমে আফগানিস্তানে প্রায় দুই দশক ধরে চলা রক্তক্ষয়ী অবস্থার অবসান হয়েছে। তালেবানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সাপে-নেউলে সম্পর্কটাও উষ্ণতার দিকে মোড় নিচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে এবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনালাপে মিলিত হলেন তালেবান নেতা মোল্লা আব্দুল গনি বারাদার। যেটা কয়েকদিন আগেও ছিল ‘অসম্ভব’ বিষয়।

trump taliban

‘আফগানিস্তানে কীভাবে সহিংসতা কমানো যায়’ সে বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার কথা বলেন তারা। কাতারে তালেবানের রাজনৈতিক দপ্তরের মুখপাত্র সোহেল শাহিন জানান, ট্রাম্প আধাঘণ্টারও বেশি সময় ধরে মোল্লা বারাদারের সঙ্গে কথা বলেন।

টেলিফোনালাপে তালেবানের উপ-প্রধান মোল্লা বারাদার ট্রাম্পকে বলেন, আমেরিকা যদি সম্প্রতি স্বাক্ষরিত শান্তি চুক্তি মেনে চলে তাহলে ওয়াশিংটনের সঙ্গে তালেবানের ইতিবাচক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হবে। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার সবার স্বার্থ রক্ষা করবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। অন্যদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট টেলিফোনালাপ শেষে মোল্লা বারাদারের সঙ্গে নিজের কথোপকথনকে ফলপ্রসূ বলে বর্ণনা করেন। 

স্মর্তব্য যে, তালেবানের ইতিহাসে এই প্রথম আমেরিকার কোনো প্রেসিডেন্ট তাদের কোনো নেতার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বললেন। ১৯ বছরের দীর্ঘ যুদ্ধ অবসানের লক্ষ্যে গত শনিবার মার্কিন সরকার তালেবানের সঙ্গে চুক্তি করে। চুক্তি সইয়ের অনুষ্ঠানে আফগান সরকারের কোনো প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন না। চুক্তিতে আমেরিকার পক্ষে খালিলজাদ এবং তালেবানের পক্ষে মোল্লা বারাদার সই করেন।

sheikh mujib 2020