advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের দুই দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কাতারে। সংযুক্ত আরব আমিরাতে এখন পর্যন্ত ৪৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন, আর কাতারে এ সংখ্যা ১২। তবে দেশ দুটিতে এখন পর্যন্ত কারো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি।  

coronar infection is increasing in dubai and qatar

এদিকে, আমিরাত ও কাতারসহ মধ্যপ্রাচ্যের অন্যান্য দেশগুলোতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় আতঙ্কে আছেন প্রায় ৫০ লাখ বাংলাদেশি।

বার্তা সংস্থায় রয়টার্স জানায়, আজ শনিবার পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে ৪৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যাদের মধ্যে একজন বাংলাদেশিও আছেন।

অন্যদিকে, কাতারে আক্রান্ত পাওয়া গেছে ১২ জন। এসব দেশের নাগরিকদের মধ্যে দেখা দিয়েছে আতঙ্ক। প্রবাসীদের মধ্যেও একই অবস্থা দেখা গেছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, কুয়েত ও সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে প্রায় ৫০ লাখ বাংলাদেশি প্রবাসী বাস করেন। তাদের অধিকাংশই শ্রমিক। যার কারণে তাদের মধ্যে আতঙ্কের পরিমাণ বেশি।

দুবাইয়ে ইলেকট্রিশিয়ানের কাজ করা বাংলাদেশি প্রবাসী মোহাম্মদ নাহিদ আলম বলেন, শহরের অফিসগুলোতে যারা কাজ করছেন তাদের বেশ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। অনেকে কাজে না এসে বাসায় থাকতে চাইছেন। কোম্পানি থেকে কর্মচারীদের পরিষ্কার ও ভাইরাস নিয়ে সচেতন হতে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

কাতারে ড্রাইভারের কাজ করা মোহাম্মদ শোয়েব বলছেন, আমি ড্রাইভারের ডিউটি নিয়ে এখন আতঙ্কে আছি। কারণ গাড়িতে অনেক ধরনের মানুষ উঠে। বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশে আমার পরিবার খুব চিন্তিত। তারা আমাকে কয়েক মাসের জন্য গাড়ি চালাতে নিষেধ করছে।

এদিকে, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে সীমান্তে সব যোগাযোগ স্থগিত করেছে সৌদি আরব। সেইসঙ্গে কুয়েত ও বাহরাইনের সঙ্গেও সীমান্তের সব যোগাযোগ স্থগিত করেছে তারা।

অন্যদিকে, কাতার ও কুয়েত তাদের সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে। এতে করে অন্যান্য রাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের সীমান্তে যোগাযোগ স্থগিত হয়েছে।