advertisement
আপনি দেখছেন

করোনার প্রকোপ থামাতে সর্বোচ্চ কঠোর পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে ইতালি। তারা বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টিনে (সংক্রমণ ঠেকাতে নির্দিষ্ট মানুষকে আলাদা রাখার ব্যবস্থা) রাখবে ১ কোটি ৬০ লাখ মানুষকে। এমন অবস্থা থাকবে এপ্রিল প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত। করোনায় কমপক্ষে ২৩০ জন মারা যাওয়ার পর এমন কঠোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার।

corona italy

দেশটির লোমবারডি অঞ্চলসহ ১৪টি প্রদেশের এসব মানুষকে বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টিন রাখা শুরু হয়েছে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সকল প্রকার জিম, পুল, জাদুঘর, রিসোর্ট, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়। অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র বলে পরিচিত মিলান এবং পর্যটকদের কাছে প্রিয় স্থান ভেনিসও সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে আগামী ৩রা এপ্রিল পর্যন্ত। খবর বিবিসির।  

করোনাভাইরাসের আক্রমণে ইউরোপে মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইতালির। গত শনিবার আক্রান্তের সংখ্যা এক ধাক্কায় ১,২০০ থেকে বেড়ে হয়েছে ৫,৮৮৩ জনে। গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেছে ৫০ জনের বেশি। এর পরপরই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জোরালো পদক্ষেপ নেয় ইতালি সরকার।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শে ইতালি আরও কিছু কঠিন পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। স্থগিত করা হয়েছে বিয়ের অনুষ্ঠান ও শেষকৃত্যসহ ধর্মীয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সিনেমা, নাইট ক্লাব সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। রেস্তোরাঁ কিংবা ক্যাফে খোলা থাকতে পারে কিন্তু ক্রেতাদেরকে অবশ্যই এক মিটার দূরত্ব রেখে বসতে হবে।

দেশটির নাগরিকদের বলা হয়েছে যতটা সম্ভব ঘরে থাকতে। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে সব ধরণের খেলাধুলার আসর। আছে শাস্তির ঘোষণাও- যদি কেউ কোয়ারেন্টিন ভঙ্গ করে তাহলে তাকে তিন মাস জেলে কাটাতে হবে