advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্বের ১০৯টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস, কোভিড-১৯। এতে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৮২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সংক্রমিত হয়েছেন আরো ১ লাখ ১০ হাজার ৫৬ জন। অপর দিকে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৬২ হাজার ২৭৬ জন।

corona virus new 2

গত বছর ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম কোভিড-১৯ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। এখন পর্যন্ত দেশটিতেই সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি হয়েছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ১১৯ জনের। সংক্রমিত হয়েছে ৮০ হাজার ৭৩৫ জন।

এদিকে, গত একদিনে ইতালিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৩৩ জনের। এতে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬৬ জনে। সংক্রমিত হয়েছে মোট ৭ হাজার ৩৭৫ জন। চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে এ দেশটিতেই। তবে সবচেয়ে বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন কোরিয়ায়। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছে ৭ হাজার ৩৮২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫১ জনের।

এশিয়ার বিভিন্ন দেশের পাশাপাশি বাংলাদেশেও এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। রোববার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, দেশে তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে দুই জন ইতালি থেকে দেশে এসেছেন এবং একজন তাদের সংস্পর্শে ছিলেন। আক্রান্তদের মধ্যে দুইজন পুরুষ এবং একজন নারী। তাদের বয়স ২০ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে। তাদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

এছাড়া, ইরান, ইরাক, জাপান, জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড, ভারত, সুইডেন, সিঙ্গাপুর, নেদারল্যান্ডস, নরওয়ে, বেলজিয়াম, হংকং, মালয়েশিয়া, অস্ট্রিয়া, অস্ট্রেলিয়া, বাহরাইন, কুয়েত, কানাডা, থাইল্যান্ড, তাইওয়ান, গ্রিস, আমিরাত, আইসল্যান্ড, সান মারিনো, ডেনমার্ক, লেবানন, ইসরায়েল, চেক রিপাবলিক, আয়ারল্যান্ড, আলজেরিয়া, ভিয়েতনাম, ওমান, ফিলিস্তিন, মিসর, ফিনল্যান্ড, ব্রাজিল, ইকুয়েডর, পর্তুগাল, রাশিয়া, ক্রোয়েশিয়া, কাতার, ম্যাকাউ, এস্তোনিয়া, জর্জিয়া, রোমানিয়া, আর্জেন্টিনা, স্লোভেনিয়ায় করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

আজারবাইজান, বেলারুশ, মেক্সিকো, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, সৌদি আরব, চিলি, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া, পেরু, ইন্দোনেশিয়া, নিউজিল্যান্ড, সেনেগাল, হাঙ্গেরি, লুক্সেমবার্গ, উত্তর মেসিডোনিয়া, বসনিয়া, ডোমিনিক প্রজাতন্ত্র, মরক্কো, আফগানিস্তান, কম্বোডিয়া, বুলগেরিয়া, ক্যামেরুন, মালদ্বীপ, দক্ষিণ আফ্রিকা, লাটভিয়া, আন্দোরা, আর্মেনিয়া, লিথুনিয়া, মোনাকো, জর্ডান, নেপাল, নাইজেরিয়া, তিউনিসিয়া, ইউক্রেন, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, কোস্টারিকা, ভ্যাটিকান সিটি, সার্বিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, গিব্রালটার এবং টোগোতেও পাওয়া গেছে করোনা আক্রান্ত রোগী।