advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ক্রমশ বাড়ছে। ইতোমধ্যে দেশটিতে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া আক্রান্ত হয়েছেন আরো ৭৪ জন। সবমিলিয়ে জনগণের মাঝে এক প্রকার আতঙ্ক বিরাজ করছে। এমনই অবস্থায় দেশবাসীকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য ফের বার্তা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

india pm norendra modi

আজ শুক্রবার এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, ‘আতঙ্ককে না ও সচেতনতাকে হ্যাঁ বলতে হবে। যে যেখানে আছেন সেখানেই অবস্থান করুন। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কারো বাড়ির বাইরে যাওয়ার দরকার নেই। আগামী কয়েকদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের বিদেশ সফরে যাওয়ার দরকার নেই।’

দেশবাসীকে গণজমায়েত এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির ওপর সরকারের সার্বক্ষণিক নজর রয়েছে। জনগণের সুরক্ষার জন্য রাজ্যগুলোতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সবাইকে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নিতে হবে। আতঙ্কের কোনো কারণ নেই।’

এর আগেও করোনা মোকাবেলায় বার্তা দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি। সে সময় তিনি বলেছিলেন, করমর্দনের বদলে হাত জোড় করে নমস্কার করার প্রথা ফের চালু হোক। এতে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা কম।

এদিকে, ভারতের রাজধানী দিল্লি তথা পুরো রাজ্যে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে মহামারি ঘোষণা করা হয়েছে। সেইসঙ্গে সেখানকার স্কুল, কলেজসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও সিনেমা হল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এক টুইট বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল বলেন, করোনার মহামারি মোকাবেলায় তার সরকার সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করবে। সংক্রমণ ঠেকাতে আমাদের সব ধরনের সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। রাজ্যের সব স্কুল, কলেজ ও সিনেমা হল আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে পরীক্ষাসমূহ পূর্বনির্ধারিত সময়েই হবে। বড় ধরনের জমায়েত এড়িয়ে চলতে জনগণকে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ভারতে এ পর্যন্ত অন্তত ৭৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আর দিল্লিতে আক্রান্ত হয়েছেন ছয়জন। অন্যদিকে, দেশটিতে করোনায় এ পর্যন্ত অন্তত একজনের মৃত্যু হয়েছে।