advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৩২টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। কেড়ে নিয়েছে চার হাজার ৯৭৩ জনের প্রাণ। সম্প্রতি একে মহামারি ঘোষণা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। গণমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে ভাইরাসটি প্রথম শনাক্ত হয়। কিন্তু সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট এক প্রতিবেদনে দাবি করছে, আজ থেকে ১১৭ দিন আগে অর্থাৎ গত বছরের ১৭ নভেম্বর প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে চীন।

23 bangladeshi not infected in corona

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই দিন হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে ভাইরাস আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়। অর্থাৎ তিনিই প্রথম করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। এরপর থেকে প্রতিদিন নতুন নতুন আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গেছে। ডিসেম্বরের ১৫ তারিখ আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ২৭ জনে। আর ২০ ডিসেম্বরে গিয়ে তা দাঁড়ায় ৬০ জনে।

খবরে বলা হয়, ডিসেম্বরের শেষদিকে চীনা চিকিৎসকরা উপলব্ধি করতে সক্ষম হন যে, তারা একটি নতুন রোগের মোকাবেলা করছেন।

গত বছরের ২৭ ডিসেম্বর হুবেই প্রাদেশিক হাসপাতালের চিকিৎসক ঝাং জিশিয়ান চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছিলেন, প্রদেশটিতে নতুন একটি ভাইরাস মানুষের দেহে সংক্রমণ ঘটাচ্ছে। সন্দেহভাজনদের পরীক্ষা করে তিনি নিশ্চিত হয়েছিলেন, বেশ কিছু দিন ধরেই তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ২০১৯ সালের শেষ দিনে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২৬৬। ২০২০ সালের প্রথম দিন (১ জানুয়ারি) এ সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৩৮১ জনে।

এখন পর্যন্ত প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে চীনসহ সারা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯৭৩ জনে। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৩৬ হাজার ৬৭৮ জন। সুস্থ হয়েছে ৬৯ হাজার ১৪২ জন। আর চিকিৎসাধীন রয়েছে ৬০ হাজার ৫৬৪ জনের বেশি মানুষ।

sheikh mujib 2020