advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশের প্রতিবেশী দেশ ভারতে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা অতি দ্রুত বাড়ছে। এক হিসেবে দেখা যায়, প্রতি ঘণ্টায় ২০ জন করে রোগী করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন দেশটিতে। গতকাল শুক্রবার নতুন করে ৪৭৮ জনের দেহে করোনাভাইরাসের জীবাণু শনাক্ত করা হয়েছে।

doctors ready indiaছবিতে ডাক্তার

এর আগে সেখানে ২৪ ঘণ্টায় এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি। সংক্রমণের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৫৯ জনে। মোট মৃত্যু ৮৬।

করোনা আক্রান্ত রাজ্যগুলোর মধ্যে এই মুহূর্তে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। রাজ্যটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৯০ জনে। সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭ জন। মারা গেছেন ২৬ জন।

এছাড়া বাংলাদেশের পার্শ্ববর্তী রাজ্য পশ্চিমবঙ্গে আক্রান্তে সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৩ জনে। মারা গেছেন ৩ জন।

গত জানুয়ারি মাসের ৩০ তারিখে ভারতে প্রথমবারের মতো কারো শরীরে করোনার জীবাণু পাওয়া যায়। এরপর আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে এ সংখ্যা। কিন্তু বর্তমানে যে উল্লম্ফন তার জন্য অনেকেই দায়ী করছেন দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজে অনুষ্ঠিত তাবলিগ জামাতের সমাবেশকে।

india affectedছবিতে সাধারণ জনগণকে সচেতন করা হচ্ছে

১ মার্চ থেকে ১৫ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে প্রায় ২ হাজার মানুষ একত্রিত হয়েছিলেন। ভারতের নাগরিক ছাড়াও বাংলাদেশসহ ৫ দেশ থেকে প্রায় ৩০০ বিদেশি যোগ দিয়েছিলেন দিল্লির ওই জামাতে। আইসোলেশন, কোয়ারেন্টাইন, হাসপাতালে আলাদা চিকিৎসাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের পরও সমাবেশে যোগ দেওয়া ১২ জন ইতোমধ্যে মারা গেছেন। ২ হাজার উপস্থিতির মধ্যে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে ৬৪৭ জনকে।

পার্শ্ববর্তী দেশ পাকিস্তানের অবস্থাও ভালো নেই। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৬৮৬ জন। মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৪০ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে নতুন করে আরো পাঁচজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৬১ জনে। তবে নতুন করে কেউ মারা না যাওয়ায় মৃতের সংখ্যা ৬ জনেই রয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৬ জন।