advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের থাবায় গোটা বিশ্ব যখন বিপর্যস্ত, তখন ধনিক শ্রেণির লোকেরা যেন আরো ধনী হচ্ছেন। অন্তত যুক্তরাষ্ট্রে এমনটাই প্রত্যক্ষ করা গেছে। দেশটিতে মার্চের মাঝামাঝি থেকে চলতি মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত ধনীদের সম্পদ বেড়েছে ৪৩৪ বিলিয়ন ডলার৷

gates zukerberg bezos buffetকরোনাকালে মার্কিন শীর্ষ ধনীরা আরো ধনী হচ্ছেন

আমেরিকানস ফর ট্যাক্স ফেয়ারনেস এবং ইনস্টিটিউট ফর পলিসি ইনস্টিটিউটের ‘প্রোগ্রাম ফর ইকুয়ালিটি’নতুন এক রিপোর্টে এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, উল্লিখিত দুই মাসে অ্যামাজনের জেফ বেজোসের সম্পদে যোগ হয়েছে ৩৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার৷

অন্যদিকে, একই সময়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের সম্পদে বেড়েছে ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

ছয় শতাধিক মার্কিন কোটিপতির তথ্য থেকে রিপোর্টটি তৈরি করা হয়েছে৷ বিখ্যাত মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস গত ১৮ মার্চ থেকে ১৯ মে পর্যন্ত লকডাউন চলাকালীন তাদের আয় সংক্রান্ত তথ্য জানিয়েছে৷

প্রতিবেদনটির বরাত দিয়ে ডয়চে ভেলে জানিয়েছে, উল্লিখিত দুই মাসে মার্কিন কোটিপতিদের মোট সম্পদের পরিমাণ ১৫ ভাগ বেড়েছে৷ অর্থাৎ ২ দশমিক ৯৪৮ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে হয়েছে ৩ দশমিক ৩৮২ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার৷

এর মধ্যে দেশটির শীর্ষ পাঁচ ধনী তথা বেজোস, জাকারবার্গ, বিল গেটস, ওয়ারেন বাফেট এবং ল্যারি এলিসনের সম্পদ বেড়েছে মোট ৭৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তবে এ সময়ে শতকরা হিসাবে বেশি লাভ হয়েছে এলন মাস্কের৷ উল্লিখিত সময়ে তার মোট সম্পদ বেড়েছে শতকরা ৪৮ ভাগ৷ এর পরই আছেন জাকারবার্গ। তার সম্পদ বেড়েছে ৪৬ ভাগ। তার পর রয়েছেন বেজোস, যা সম্পদ বেড়েছে ৩১ ভাগ৷