advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাসের একটি কার্যকর ভ্যাকসিন এখনো আবিষ্কার হয়নি। চলছে গবেষণা। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি গবেষণা শেষ ধাপেও প্রবেশ করেছে। এসব গবেষণার মধ্যে অন্যতম চীনের চায়না ন্যাশনাল বায়োটেক গ্রুপের (সিএনবিজি) তৈরি ভ্যাকসিন। এর গবেষকরা দাবি করছেন, মানদেহের ওপর সম্পূর্ণ নিরাপদ তাদের ভ্যাকসিনটি।

vaccine symbolic picture 05প্রতীকী ছবি

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের বরাতে জানা যায়, সিএনবিজির গবেষকরা প্রথম ধাপে মাবনদেহে পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিন প্রয়োগের ফলাফল বিশ্লেষণ করেছেন। এতে মানবদেহে কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তাছাড়া ভাইরাসের সংক্রমণ থেকেও সবাই সুস্থ আছেন এখন পর্যন্ত।

গবেষকরা বলছেন, ভ্যাকসিন প্রয়োগের পর সংশ্লিষ্টদের দেহে তারা উচ্চমাত্রায় এন্টিবডির উপস্থিতি পেয়েছেন। প্রথম ধাপে তারা যে ১ হাজার ১২০ জনের ওপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়, তাদের সবার দেহেই এন্টিবডি পাওয়া গেছে। তারা সবাই এখন পর্যন্ত সুস্থ আছেন।

vaccine symbolic pictureপ্রতীকী ছবি

জানা যায়, করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের লক্ষ্যে চীনে ৮টি বড় গবেষণা চলমান। এর মধ্যে কিছু গবেষণা বিশ্বের অন্যান্য দেশের সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে পরিচালিত হচ্ছে। বাকিগুলো নিয়ে চীনা গবেষকরা এককভাবে কাজ করছেন। ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দৌড়েও বেশ এগিয়ে আছেন তারা।

মানবদেহে একটি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ সাধারণত ৩টি ধাপে সম্পন্ন করা হয়। সিএনবিজির গবেষণাটি দ্বিতীয় ধাপ শেষ করে তৃতীয় ধাপে প্রবেশ করেছে।

মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের সব ধাপে নিরাপদ প্রমাণিত হলেই কেবল একটি ভ্যাকসিন গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত হয়। এর পরই তা গণহারে প্রয়োগের অনুমতি দেওয়া হয়।

sheikh mujib 2020