advertisement
আপনি দেখছেন

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে ফের শুদ্ধি অভিযানের পরিকল্পনা করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে কয়েক ডজন গ্রাম প্রধানকে সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে। এরপরই রাজ্যের হাজার হাজার গ্রামবাসী ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া শুরু করেছে বলে জানিয়েছে দেশটির একজন আইপ্রণেতা ও একটি মানবাধিকার সংগঠন।

people of rakhainসেনা অভিযানের খবরে ঘরবাড়ি ছাড়ছে শত শত মানুষ

দেশটির সরকারের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, সীমান্ত বিষয়ক কর্মকর্তারা একটি উচ্ছেদ আদেশ জারি করেছেন। অবশ্য পরবর্তীতে তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। সীমান্ত বিষয়ক মন্ত্রণালয় স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে এই আদেশ জারি করে। তবে এর প্রভাব মাত্র অল্প কয়েকটি গ্রামে পড়েছে বলে দাবি ওই মুখপাত্রের।

গত বুধবার এক চিঠির মাধ্যমে এ সতর্কবার্তা দেয়া হয়। স্থানীয় রাথেডাং পৌরসভার প্রশাসক অং মাইন্ট থেইন স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, পৌরসভার কায়ুকতান গ্রাম ও আশপাশের এলাকাগুলোতে বিদ্রোহীদের আশ্রয় দেয়া হয়েছে। তাই সেখানে অভিযান চালানোর পরিকল্পনা করেছে সেনারা।

এ বিষয়ে রাখাইন রাজ্য সরকারের নিরাপত্তা ও সীমান্ত বিষয়ক মন্ত্রী কর্নেল মিন থান বলেন, তার মন্ত্রণালয় থেকেই নির্দেশটি দেয়া হয়েছিল। মূলত প্রশাসন থেকে বলা হয়েছে, বাহিনীগুলো ওই গ্রামগুলোতে শুদ্ধি অভিযান চালাবে। যদি এএ (আরাকান আর্মি) এবং সন্ত্রাসীদের সঙ্গে লড়াই শুরু হয়, তাহলে গ্রামে না থেকে সবাইকে কিছু সময়ের জন্য দূরে থাকতে হবে।

তিনি বলেন, চিঠিতে বর্ণিত ‘শুদ্ধি অভিযান’ বলতে সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে সামরিক অভিযান চালানোর কথা বুঝানো হয়েছে। তাছাড়া চিঠিতে ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। সেখানে কয়েক ডজন গ্রামে অভিযান চালানোর কথা উল্লেখ রয়েছে। সেটা মাত্র কয়েকটি গ্রাম হবে। এটা ছাড়া চিঠির অন্য বিষয়গুলো ঠিক আছে।

মিয়ানমার সরকারের মুখপাত্র জ হতাই ফেসবুকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলেন, সরকার সামরিক বাহিনীকে ‘শুদ্ধি অভিযান’ পরিভাষাটি ব্যবহার না করার নির্দেশ দিয়েছে। একই সঙ্গে লোকজনকে পালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া চিঠিটি প্রত্যাহার করা হয়েছে।

এদিকে সতর্কবার্তা পাওয়ার পর নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য ইতোমধ্যে কায়ুকতান গ্রাম থেকে ৮০ জন লোক রাথেডাং পৌরসভার অন্য এলাকায় চলে গেছেন। সেখানে যাওয়ার পর সেনাবাহিনী তাদের আশ্রয় ও খাবারের ব্যবস্থা করেছে।

যদিও স্থানীয় মানবাধিকার সংগঠন রাখাইন এথনিক কংগ্রেসের সম্পাদক জ জ হতুন জানান, সেনা অভিযানের ভয়ে অন্তত এক হাজার ৭০০ লোক পার্শ্ববর্তী পন্নাগিয়ুন পৌরসভায় পালিয়ে গেছেন। আরো এক হাজার ৪০০ লোক আশপাশের গ্রামগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে। তারা বর্তমানে তীব্র খাদ্য সঙ্কটে আছেন।

sheikh mujib 2020