advertisement
আপনি দেখছেন

হাজিয়া সোফিয়া মসজিদ হবে নাকি জাদুঘরই থাকবে তা নিয়ে তুর্কি আদালতে চলছে মামলা। সে মামলার রায় না হলেও আদালত স্থাপত্যটির জাদুঘর থাকার বৈধতা প্রত্যাহার করেছে। এরপর তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান স্থাপত্যটিকে মসজিদে রূপান্তর করার কথা বলেছেন। তুরস্কের এমন পদক্ষেপে আশাহত হয়েছে  যুক্তরাষ্ট্র। এ তথ্য জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মরগান ওরতাগুস।

hagia shofia turkeyহাজিয়া সোফিয়া

তিনি বলেন, তুর্কি সরকারের এমন আচরণে আমরা আশাহত হয়েছি। তারা হাজিয়া সোফিয়ার বর্তমান পরিচয় মুছে দিতে চায়। বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ এই স্থাপত্যটিতে সকলের প্রবেশ নিশ্চিত রাখতে হবে। তুর্কি সরকার এ বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকলেও তা নিয়ে আমাদের সন্দেহ আছে।

দ্য নিউ আরবের বরাতে জানা যায়, তুর্কি আদালতে হাজিয়া সোফিয়ার জাদুঘরের তকমা প্রত্যাহারের পর দেশটির প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান বলেছেন, নামাজ আদায়ের জন্য হাজিয়া সোফিয়া পুনরায় খুলে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, আগামী ২৪ জুলাই সেখানে নামাজ আদায় করা হবে।

hagia sofia9হাজিয়া সোফিয়া

ইউনেস্কোর বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হাজিয়া সোফিয়া পর্যটকপ্রেমীদের কাছে অন্যতম আকর্ষণ। ৬ষ্ঠ খ্রিস্টাব্দে বাইজেন্টাইন সম্রাট জাস্টেনিয়ানের তত্ত্বাবধানে এর নির্মাণ হয়। সে সময় এটি চার্চ হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে। পরে ১৪৫৩ সালে অটোম্যান সম্রাট মেহমেদ ওই এলাকা দখলে নিলে তা মসজিদে রূপান্তর করা হয়।

এরপর ১৯৩৪ সাল পর্যন্ত বিখ্যাত এই স্থাপত্যটি মসজিদ হিসেবেই ব্যবহৃত হয়েছে। পরে এটিকে জাদুঘরে রূপান্তর করা হয় তুরস্কে তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ সরকারের আমলে।

sheikh mujib 2020