advertisement
আপনি দেখছেন

আবার সেই তিউনিশিয়া, ২০১১ সালে যেখানে লেগেছিল আরব বসন্তের প্রথম ঢেউ। কয়েকটি দেশের দীর্ঘ সময়ের শাসকদের ক্ষমতা ভিত নড়ে উঠেছিল। এলোমেলো হয়ে গিয়েছিল তাদের সবকিছু। যার প্রভাব আজও বিরাজ করছে ওইসব দেশে। সেই তিউনিশিয়ায় আবারো সরকারবিরোধী বিক্ষোভ হয়েছে। এক যুবক নিহতের ঘটনাকে কেন্দ্র করে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের রেমাদা শহর উত্তাল করে রেখেছে স্থানীয়রা। তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে দেশটির প্রেসিডেন্ট কাইস সাইয়েদের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন।

protest in tunishiyaসেই তিউনিশিয়ায় ফের বিক্ষোভ

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে দ্য নিউ আরব জানায়, গত সপ্তাহে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হাতে নিহত হয় এক যুবক। এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে তারা বিক্ষোভের মাধ্যমে সরকারকে চাপ দেয়ার চেষ্টা করছেন।

বিক্ষোভকারীদের দাবি, হয় আমরা ভালো জীবনযাপনের সুযোগ পাবো অথবা মরে যাবো। আমরা প্রেসিডেন্ট কাইসকে দেখতে চাই। আমরা তাকে ভোট নিয়ে নির্বাচিত করেছি। তার এখানে অবশ্যই আসতে হবে। এখানে এসে তার দেখতে হবে কীভাবে আমাদের সন্তানদের মেরে ফেলা হচ্ছে।

protest in tunishiya01সেই তিউনিশিয়ায় ফের বিক্ষোভ

জানা যায়, গত মঙ্গলবার রাতে রেমাদা শহরের কাছেই মাদক পাচারকারী সন্দেহে এক যুবককে হত্যা করে স্থানীয় পুলিশ। ওই ঘটনার পরই ফুঁসে উঠেন স্থানীয়রা।

দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি এই হত্যাকাণ্ডের যথাযথ কারণ জানতে চেয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তাদের কাছ।

জানা যায়, তিউনিশিয়ার দক্ষিণের রেমাদাসহ আরো বেশ কিছু এলাকা দেশটির সবচেয়ে প্রান্তিক অঞ্চল হিসেবে পরিগণিত হয়। এসব এলাকায় বেকারত্বের হার খুব বেশি। বেসরকারি খাতের তেমন কোনো উপস্থিতি নেই। অবকাঠামোগত কোনো উন্নতি এসব এলাকায় হয়নি।

বিক্ষোভে স্থানীয়রা এই অবস্থা থেকে উত্তরণেরও দাবি উত্থাপন করছেন বলে জানা গেছে।

sheikh mujib 2020