advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানি বলে খ্যাত মুম্বাইয়ের তিনটি বড় বস্তির অর্ধেকেরও বেশি অধিবাসি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। এদের অনেকে এখনো রোগে ভুগছেন বা সুস্থ হয়ে গেছেন। সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

covid 19 cases in mumbai slums

মুম্বাইয়ের করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের বেশির ভাগই বস্তির বাসিন্দা। শহরটির মোট আক্রান্তের মধ্যে মাত্র ১৬ শতাংশ বস্তিবাসি নন। জুলাইয়ের শুরুর দিকে সাত হাজারের বেশি লোকের করোনাভাইরাস টেস্ট করে এ রকম তথ্য পাওয়া গেছে।

মুম্বাইয়ে সব মিলিয়ে এক লাখ ১০ হাজারের বেশি লোক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং এদের মধ্যে ছয় হাজারের বেশি লোক মারা গেছেন। ২৮ জুলাই পর্যন্ত পাওয়া তথ্য থেকে এটুকু জানা গেছে।

সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে সমীক্ষাটি পরিচালিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে চেম্বুর, মাতুঙ্গা এবং দাহিসার বস্তির ৫৭ শতাংশ লোক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

মুম্বাইয়ের পূর্ব, পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত এই সব বস্তিতে অন্তত দেড় মিলিয়ন লোক বসবাস করেন।

এই গবেষণার সঙ্গে জড়িত একজন গবেষক সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, বস্তিতে যতো দ্রুত করোনাভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা করা হয়েছিলো, ছড়িয়েছে আসলে তার চেয়ে দ্রুত। এর ফলেই মূলত মুম্বাই ভারতের সবচেয়ে বেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত লোকের শহর।

টাটা ইন্সটিটিউট অব ফান্ডামেন্টাল রিসার্চের ডক্টর উল্লাস এস কোলঠুর এ বিষয়ে বলেন, “গবেষণার জন্য আমরা যে তিনটি এলাকাকে বেছে নিয়েছি, সেখানে বস্তি আছে, বস্তি বা শহর থেকে আলাদা বাড়ি আছে এবং হাউজিং কমপ্লেক্সও আছে।”

গবেষকরা আরো বলেছেন, বস্তিবাসির অনেকের শরীরেই অ্যান্টিবডি তৈরি হয়েছে। ফলে তারা আপাতত করোনাভাইরাসের আরো বড় ধরনের ক্ষতি আশঙ্কা থেকে মুক্ত। কিন্তু এটি সুনিশ্চিত কোনো বিষয় নয়।

sheikh mujib 2020