advertisement
আপনি দেখছেন

মরণঘাতী করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন এখনও আবিষ্কার হয়নি। সংযুক্ত আরব আমিরাতে গবেষণার সর্বশেষ ধাপে পাঁচ হাজার মানুষের ওপর নমুনা ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হয়েছে। দেশটির আবুধাবি ন্যাশনাল এক্সিবিশন সেন্টারে (এডিএনইসি) পাঁচ হাজারতম ভ্যাকসিনটি দেয়া হয়।

vaccine in dubaiআমিরাতে গবেষণার শেষ ধাপে ৫ হাজার মানুষের ওপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ

আল আরাবিয়ার বরাতে জানা যায়, আমিরাত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ডক্টর জামাল আল কাবির উপস্থিতিতে ৫ হাজারতম ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হয়। ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে রেজিস্ট্রেশনকৃত স্বেচ্ছাসেবীদের ওপর এই নমুনাটি প্রয়োগ করা হচ্ছে।

এই নমুনা ভ্যাকসিনটি মূলত ইনেক্টিভেট ভ্যাকসিন। যা তৈরি করেছে চীনা কোম্পানি সিনোফার্ম। তাদের সঙ্গে এই গবেষণায় যুক্ত আছে সংযুক্ত আরব আমিরাতের স্বাস্থ্যখাত। গত ১৬ জুলাই তারা তৃতীয় দফায় এই ভ্যাকসিনের মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু করে। যা একটি ভ্যাকসিন গবেষণার শেষ ধাপ হিসেবে বিবেচিত।

vaccine symbolic picture 08প্রতীকী ছবি

জানা যায়, এডিএনইসিতে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ১ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর ওপর প্রয়োগ করা হয় এই ইনেক্টিভেট ভ্যাকসিন।

আমিরাতের করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির প্রধান ডক্টর নাওয়াল আহমেদ আলকাবি বলেন, ধারণার চেয়েও দ্রুত কাজ হচ্ছে। খুব তাড়াতাড়ি ৫ হাজার মানুষের ওপর ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা সম্ভব হয়েছে। এটি সম্ভব হয়েছে স্বেচ্ছাসেবীদের সরব অংশগ্রহণে এবং আমিরাত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একাগ্রতায়।

তিনি এ সময় ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগে কার্যক্রমের অগ্রগতিতে মন্ত্রণালয় ও স্বেচ্ছাসেবীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনারা অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। আমাদের এখানে ১৫ হাজার মানুষ স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। আশা করছি, আপনাদের কাজের প্রতি নিষ্ঠা খুব দ্রুত কাজ শেষ করতে সক্ষম করবে।

চীনেও এই ভ্যাকসিনটি পরীক্ষামূক প্রয়োগ করা হয়েছে। সেখানে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপের ফলাফল বলছে, এর প্রয়োগের ২৮ দিনের মধ্যেই দেহে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে শক্তিশালী এন্টিবডি তৈরি হয়।

sheikh mujib 2020