advertisement
আপনি দেখছেন

এক বছর হতে চলল জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ অধিকার কেড়ে নিয়েছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। এবার সেখানকার দায়িত্বে নিযুক্ত হলেন মোদির রাজনৈতিক দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) নেতা মানোজ সিনহা। তাকে কাশ্মিরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

new head in kashmirকাশ্মিরের দায়িত্বে নিযুক্ত হলেন মোদিভক্ত নেতা

আরব নিউজের বরাতে জানা যায়, মানোজ সিনহা এর আগে মোদি সরকারের মন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন। আগের লেফটেন্যান্ট গভর্নর গিরিস চন্দ্র মুরমু’র স্থলাভিষিক্ত হলেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার ভারতের প্রেসিডেন্ট রাম নাথ কোভিন্দ এক বিবৃতিতে বলেন, মানোজ সিনহাকে জম্মু-কাশ্মিরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর নিয়োগ দিতে পেরে আমি সন্তুষ্ট।

srinagar kashmirশ্রীনগর

এই বিবৃতি প্রকাশের পর সিনহা কাশ্মিরের রাজধানী শ্রীনগরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এটি অনেক বড় দায়িত্ব। আশা করছি সঠিকভাবে পালন করতে পারবো।

আরব নিউজ বলছে, বুধবার কাশ্মিরে স্থানীয়দের বিক্ষোভ নিরসনে কারফিউ জারি করা হয়। এরপরেই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নেন মুরমু। এরকম পরিস্থিতিতে একজন মোদিভক্ত সেখানকার প্রধান নিযুক্ত হওয়ায় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে ভারতের রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মধ্যে।

জম্মু-কাশ্মিরে সাধারণত একজন লেফটেন্যান্ট গভর্নরই সব প্রশাসনিক কার্যক্রমের প্রধান। তার নেতৃত্বেই সব রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হয়।

নতুন লেফটেন্যান্ট গভর্নর নিয়োগ প্রসঙ্গে আন্তর্জাতিক আইন ও মানবাধিকার বিষয়ক অধ্যাপক শেখ শওকত হুসেইন বলেন, মুরমু বলির পাঁঠা হয়েছেন। তাকে সরিয়ে দেওয়া প্রমাণ করে, গত বছর কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নিয়ে মোদি সরকার যে এজেন্ডা হাতে নিয়েছিল তা বাস্তবায়ন হয়নি। নতুন যে লেফটেন্যান্ট গভর্নর নিযুক্ত হয়েছেন তিনি কট্টরপন্থী হিন্দু নেতা। দেখা যাক, শ্রীনগরের দায়িত্ব পেয়ে তিনি কী করেন।

sheikh mujib 2020