advertisement
আপনি দেখছেন

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে রাসয়নিক দ্রব্যের বিস্ফোরণে ৪৩ মিটারের (১৪১ ফুট) গর্ত সৃষ্টি হয়েছে। রোববার এক বিবৃতিতে শহর নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে। ফ্রান্সের গবেষণা দলের সাহায্যে এ তথ্য তারা জানতে পেরেছেন বলে জানিয়েছে আল আরাবিয়া।

beirut explosion 011বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার দৃশ্য

গত মঙ্গলবার বৈরুতের এক গুদামে রাখা ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটে আগুন লেগে এ বিস্ফোরণ হয়। যা এতোই শক্তিশালী ছিলো যে ১৬০ কিলোমটার দূরে সাইপ্রাসেও তা অনুভূত হয়েছে। মার্কিন ভূ-পদার্থ ইনস্টিটিউটের তথ্যমতে, এই বিস্ফোরণে ৩ দশমিক ৩ মাত্রার ভূমিকম্প হয়েছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বৈরুতের এই বিস্ফোরণ ৬ হাজারেরও অধিক মানুষকে আহত করেছে। কেড়ে নিয়েছে ১৫৪ জনের প্রাণ। নিখোঁজ আছে ৬০ জন। শহরের ৩ লাখ মানুষের ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেকেই খোলা আকাশের নীচে রাত যাপন করছেন।

beirut explosion 3বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার দৃশ্য

আল আরাবিয়া বলছে, ২০০৫ সালে সাবেক লেবানিজ প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরিকে এক ভয়াবহ বোমা হামলায় হত্যা করা হয়। সেই বিস্ফোরণে ১০ মিটারের গর্ত সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু মঙ্গলবারের ঘটনা তার থেকেও কয়েকগুণ শক্তিশালী।

ব্রিটিশ একদল গবেষকের মতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানের হিরোশিমায় ফেলা পারমাণবিক বোমার ১০ শতাংশ শক্তিশালী ছিল। সমসাময়িক ইতিহাসে পারমাণবিক বোমা ছাড়া এতো বড় বিস্ফোরণ দেখেনি বিশ্ব। এতে যে শক ওয়েভ তৈরি হয়েছে, তা হিরোশিমায় ফেলা পারমাণবিক বোমার ২০ থেকে ৩০ শতাংশ শক্তিশালী ছিল।

sheikh mujib 2020