advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের থাবায় বিপর্যস্ত বিশ্ব। মানবসভ্যতাকে রক্ষায় দিনরাত গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন গবেষকরা। ইতোমধ্যে বেশ কিছু ভ্যাকসিন (টিকা) তারা আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়েছেন, যা ভাইরাসটির বিরুদ্ধে কার্যকর এবং মানবদেহের জন্য নিরাপদ বলে প্রমাণ হয়েছে। এই তালিকায় সর্বশেষ যে ভ্যাকসিনটি যুক্ত হয়েছে সেটি হলো যুক্তরাষ্ট্রের ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের টিকা।

novavax vac safe fruitfulনোভাভ্যাক্সের ভ্যাকসিন কার্যকর ও নিরাপদ

প্রাথমিক ফলাফলে টিকাটি নিরাপদ ও কার্যকর হিসেবে প্রমাণ হয়েছে বলে বিখ্যাত দ্য নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনের এক নিবন্ধে বলা হয়েছে। চিকিৎসা বিজ্ঞানবিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের সাময়িকীটি গত বুধবার এ সংক্রান্ত একটি নিবন্ধ প্রকাশ করেছে। অবশ্য নোভাভ্যাক্স গত আগস্টের গোড়ার দিকেই দাবি করেছিল যে, তাদের আবিষ্কৃত সম্ভাব্য টিকাটি নিরাপদ।

ওই নিবন্ধে বলা হয়েছে, করোনা রোগীর দেহে নোভাভ্যাক্সের টিকাটি প্রয়োজনীয় রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। সেইসঙ্গে এটি মানবদেহের জন্য নিরাপদ বলেই প্রমাণ হয়েছে।

novavax us companyযুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি নোভাভ্যাক্স

জানা যায়, গত মে মাসে প্রাথমিকভাবে ১৩১ জন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির ওপর এ ব্যাপারে পরীক্ষা চালানো হয়। তার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করেই এমনটি বলা হয়েছে। গবেষণায় প্রতিজনকে ২১ দিনের ব্যবধানে ভ্যাকসিনটির দুটি ডোজ দেওয়া হয়েছিল। এতে টিকা গ্রহণকারী অধিকাংশ ব্যক্তির মধ্যে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া লক্ষ করা যায়নি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সর্বশেষ তথ্যমতে, বর্তমানে গোটা বিশ্বে ১৭৬টি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা চলছে। এর মধ্যে ৩৪টি ভ্যাকসিন মানবদেহে গবেষণার বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে। যার মধ্যে সবচেয়ে আলোচনায় রয়েছে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভাবিত ভ্যাকসিনটি। যা অনেক আগেই মানবদেহে নিরাপদ ও কার্যকর বলে প্রমাণ হয়েছে। এখন ভ্যাকসিনটির চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়াল চলছে।

এ ছাড়া বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকায় রয়েছে চীনের সিনোভ্যাক এবং যুক্তরাষ্ট্রের মডার্নার সম্ভাব্য ভ্যাকসিন। সেইসঙ্গে মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ফাইজার এবং জার্মান প্রতিষ্ঠান বায়োএনটেকের উদ্ভাবিত টিকাগুলোও এই তালিকায় রয়েছে। যেগুলোর এখন তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলছে এখন। আর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভ্যাকসিনের খসড়া তালিকায় যে ৩৪টি ভ্যাকসিন রয়েছে, তার মধ্যে আছে নোভাভ্যাক্সের টিকাটিও।

উল্লেখ্য, রাশিয়ার উদ্ভাবিত একটি ভ্যাকসিনকে কার্যকর ও নিরাপদ দাবি করে ইতোমধ্যে তা প্রয়োগের অনুমতিও দিয়েছে দেশটির সরকার। এ ছাড়া চীন সরকার উদ্ভাবক প্রতিষ্ঠানকে একটি ভ্যাকসিনের স্বত্ব দিয়ে দিয়েছে।

sheikh mujib 2020