advertisement
আপনি দেখছেন

আগামী ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়া ও ইরান হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে! গতকাল বুধবার এমন অভিযোগ তোলেন মার্কিন জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালক জন র‌্যাটক্লিফ। তার এ অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন ও মিথ্যা দাবি’ বলে উড়িয়ে দিয়েছে ইরান। খবর ইয়েনি শাফাকের।

iran us flag 01যুক্তরাষ্ট্র ও ইরানের পতাকা

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ইরানের কূটনৈতিক সম্পর্ক না থাকায় মার্কিনিদের প্রতিনিধিত্ব করছে সুইজারল্যান্ড। এ জন্যই সুইস রাষ্ট্রদূতকে গতকাল বৃহস্পতিবার তলব করে তার মাধ্যমে অভিযোগের প্রতিবাদ ও তা প্রত্যাখ্যান করে ইরান।

পরে বিষয়টি নিয়ে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে কথা বলেন দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র খাতিবজাদেহ। এ সময় তিনি জানান, মার্কিন ভিত্তিহীন ও মিথ্যা দাবির বিষয়ে সুইস রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে প্রত্যাখ্যান করেছে তেহরান। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কে জিতল আর কে হারলো, তার পার্থক্য করে না ইরান- এ কথা আগেও বলা হয়েছে।

famous neuclear deal by iran usa in 2017পরমাণু সমঝোতার আলোচনায় ওবামা প্রশান ও ইরানের প্রতিনিধিরা -ফাইল ছবি

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময় তার দেশসহ বিশ্বের ছয় জাতি-গোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের পরমাণু সমঝোতা সই হয়। ২০১৮ সালে এ চুক্তি থেকে বেরিয়ে গিয়ে তেহরানের বিরুদ্ধে বেশ কয়েক ধাপে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেয় ট্রাম্প প্রশাসন।

পরমাণু চুক্তির পর ইরানের ওপর জাতিসংঘের আরোপ করা অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা গত ১৮ অক্টোবর উঠে যায়। এর ফলে গোটা বিশ্বের সঙ্গে প্রতিরক্ষা সহযোগিতা স্বাভাবিক হওয়ায় দেশটিতে স্বস্তির বাতাস বইতে শুরু করেছে। এর মধ্যেই মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার সঙ্গে ইরানকেও অভিযুক্ত করার ঘটনাকে সেদেশের কোনো প্রার্থীর ভোটের বৈতরণী পার হওয়ার কৌশলের অংশ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

sheikh mujib 2020