advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয় দিক থেকেই শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর মধ্যেই নতুন এক গবেষণার ফল প্রকাশ করেছে ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের ইনস্টিটিউট হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশন। যেখানে আমেরিকার জন্য দুঃসংবাদ প্রকাশ পেয়েছে।

us situation may worseningযুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃতদের শোক জানাতে সাজিয়ে রাখা হয়েছে খালি চেয়ার

গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সব মানুষ যদি মাস্ক ব্যবহার না করে, তাহলে প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ এর মহামারিতে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে দেশটিতে মৃত্যুর সংখ্যা ৫ লাখ ছাড়িয়ে যাবে।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটনের ইনস্টিটিউট হেলথ মেট্রিক্স অ্যান্ড ইভ্যালুয়েশনের গবেষণা রিপোর্টের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে চীনের সরকারি বার্তা সংস্থা সিনহুয়া ও ইরানি গণমাধ্যম পার্সটুডে।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের অন্তত ১৪টি অঙ্গরাজ্যে যখন করোনার তাণ্ডব চলছে, তখন এ ধরনের গবেষণা রিপোর্ট প্রকাশ করা হলো।

report xinhuaসিনহুয়ার প্রতিবেদন

গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমেরিকার শীতকাল আসন্ন এবং এ সময় কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

এদিকে, বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রে ৭৬ হাজার ১৯৫ জন মানুষকে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। এর আগে গত ১৬ জুলাই দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল। সেদিন আমেরিকায় ৭৭ হাজার ২৯৪ জন মানুষ কোভিড-১৯ সংক্রমিত হিসেবে শনাক্ত হয়েছিল।

ইউনিভার্সিটি অব ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউটের পরিচালক ক্রিস্টোফার মারি ওই গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন। হেমন্ত ও শীতে করোনার প্রাদুর্ভাব বাড়তে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, লোকজন যদি ফেস মাস্ক ব্যবহার করে, তাহলে সম্ভাব্য মৃত্যুর সংখ্যা ১ লাখ ৩০ হাজারের মধ্যে থাকতে পারে।

উল্লেখ্য, এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের ইনস্টিটিউট অফ এলার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসের মহাপরিচালক অ্যান্থনি ফাউসি একই ধরনের শঙ্কা প্রকাশ করেন। ফেস মাস্ক ব্যবহারের ওপর জোর দেন তিনিও।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে করোনার এই তাণ্ডবের পেছনে দেশটির লোকজনের আচরণকে দায়ী করেন মার্কিন স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যালেক্স আজার। এর আগে তিনি বলেন, দেশটিতে নানা রকমের সমাবেশ এবং অনুষ্ঠানের কারণে কোভিড-১৯ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।

sheikh mujib 2020